বাড়ছে সংক্রমণ, কনটেনমেন্ট জোনে পরিষেবা দেওয়া নিয়ে মুখ্যসচিবকে চিঠি ব্যাঙ্কার্স সংগঠনের

0
27

শুভম বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতাঃ

কনটেনমেন্ট জোন ভিত্তিক লকডাউন শুরুর আগেই বৃহস্পতিবার গলফগ্রিনে মৃত্যু হয়েছে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজারের। মানুষ বিভিন্ন প্রয়োজনে পেনশন থেকে টাকা তোলার মতো ব্যাঙ্কিং পরিষেবা নিতে ব্যাঙ্কে ভিড় জমাচ্ছেন। তার ফলে করোনায় সংক্রামিত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাচ্ছে ব্যাঙ্ককর্মীদের। তাই ব্যাঙ্কিং পরিষেবা নিয়ে এবার মুখ্যসচিবকে চিঠি পাঠাল ব্যাঙ্কার্স অ্যাসোসিয়েশন।

Bank | newsfront.co
প্রতীকী চিত্র

মুখ্যসচিবকে ওই চিঠিতে জানানো হয়েছে, ব্যাঙ্ককর্মীদের নিরাপত্তা সহ এটিএমগুলি স্যানিটাইজ করা থেকে ব্যাংক কর্মীদের নিরাপত্তার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হোক। রাজ্যের কনটেনমেন্ট জোনে নতুন করে শুরু হওয়া লকডাউনের মধ্যে কীভাবে ব্যাঙ্কের কাজ চলবে, তা নিয়েও পরামর্শ চাওয়া হয়েছে। তারা চাইছেন, সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ২ টোর মধ্যে ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ চালাতে চাইছেন।

আরও পড়ুনঃ ২০২১-এর আগে আসছে না করোনা ভ্যাকসিন, জানাল বিজ্ঞানমন্ত্রক

শহর কলকাতায় একের পর এক ব্যাঙ্ক কর্মীর শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। যার জেরে বন্ধ রাখতে হয়েছে কয়েকটি শাখার কাজ। গ্রাহকদের মধ্যে উপসর্গহীন করোনা আক্রান্ত থাকলেও যাঁদের সংসর্গ খুব সচেতনভাবে এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। ফলে গ্রাহকদের মধ্যে থেকেই অজান্তেই তাঁরা করোনা সংক্রমিত হচ্ছেন।

আরও পড়ুনঃ করোনা পরিস্থিতিতে বাতিল এনআইওএস ২০২০ পরীক্ষা

শহরের এটিএমগুলি নিয়েও রয়েছে আরেক সমস্যা। শহরের প্রবীণ শ্রেণী থেকে একাংশের মানুষ এখনও ডিজিটাল মাধ্যমে আর্থিক লেনদেন থেকেও এটিএমগুলির ওপরেই নির্ভরশীল। অভিযোগ, শহরের অধিকাংশ এটিএম জীবাণুমুক্তকরণের ঠিকঠাক করছে না দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থাগুলি।

আর লকডাউনে কর্মী সংখ্যা কম থাকায় অনেক সময়ে ব্যাঙ্ক কর্মীদেরই এটিএমে টাকা ভরার কাজ করতে হচ্ছে। তাতেও তাদের সংক্রমণের আশঙ্কা থাকছে। তাই কলকাতা এবং রাজ্যের অন্যান্য কনটেনমেন্ট জোনে কি ভাবে ব্যাঙ্কিং পরিষেবা দেওয়া যাবে, তা নিয়েই মুখ্যসচিবের কাছে পরামর্শ চেয়েছেন ব্যাঙ্ক আধিকারিকরা।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here