অনুমতি ছাড়াই রাস্তার দু’ধারের গাছ যথেচ্ছ ভাবে কাটা হচ্ছে,নিরব প্রশাসন

0
255

নিজস্ব সংবাদদাতা,আরামবাগঃ

হুগলীর গোঘাটে অনুমতি ছাড়াই সরকারি প্রকল্পের মাধ্যমে বসানো গাছ কাটার অভিযোগ। সরকার যেখানে দিকে দিকে সবুজায়ন গড়ে তোলার লক্ষ্যে নানান প্রকল্প গ্রহণ করছে,সেখানে বনসৃজন প্রকল্পের লাগানো সরকারী গাছ দেদার কেটে ফেলা হচ্ছে প্রকাশ্যে দিনের আলোতে।অথচ গাছ কাটার কোন অনুমোদন আছে কিনা সে বিষয়ে কেউ কিছুই প্রমান পত্র দেখাতে পারেনি।ঘটনা গোঘাটের রঘুবাটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার।

নিজস্ব চিত্র

অথচ প্রতিবছর ঘটা করে পালন করা হয় বনসৃজন দিবস। পি ডব্লিউ ডি রাস্তার দুধারে গড়ে ওঠা সবুজ এই সমস্ত গাছ দেদার কেটে ফেলা হচ্ছে। অথচ এই প্রসঙ্গে প্রধান থেকে শুরু করে প্রশাসনিক আধিকারিক কেউ মুখ খুলতে চান নি। যে যার নিজের দায় এড়িয়ে গেছেন।গোঘাট ১ নম্বর ব্লকের রঘুবাটি গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বেঙ্গাই মোড় থেকে রঘুবাটি অঞ্চলের শালীনচা পর্যন্ত প্রায় চার কিলোমিটার রাস্তার দু’ধারে থাকা মূল্যবান গাছ কেটে নেওয়া হচ্ছে। যদিও গাছ কাটার সঙ্গে নিযুক্ত কর্মীরা দাবি করেছেন রঘুবাটি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানের নির্দেশে এই গাছগুলি কেটে ফেলা হচ্ছে। এই রাস্তার ওপর প্রায় উনিশশো গাছ আছে বেশ কয়েকদিন ধরেই চলছে গাছ কাটা।গাছ কাটার সাথে যুক্ত এই শ্রমিকেরা জানান,আমাদের কাটতে বলা হয়েছে। আমরা তাই কাটছি। কেউ আবার ছবি তোলা দেখে ক্যামেরা বন্ধ করতে বলেন। আবার টেন্ডার হয়েছে কিনা তাও তারা বলতে পারেননি।

নিজস্ব চিত্র

এই সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে রঘুবটী গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অচিন্ত কুমার রায় বলেন, আমি অনুমতি নিয়ে তবেই গাছ কাটছি আমাকে কালিমালিপ্ত করার জন্য কেউ বা কারা এই ধরনের মিথ্যা অভিযোগ তুলেছে । গাছ কাটার জন্য আমার কাছে সব কাগজপত্র আছে। গোঘাট- ১ নম্বর ব্লক সভাপতি মৃণাল আলু বলেন, অভিযোগটা আমার কানে এসেছে, আমি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেব।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here