জলঙ্গীর পদ্মা নদীর তীরে পার্কের দাবি

0
67

সজিবুল ইসলাম, মুর্শিদাবাদঃ

ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে মিলন কেন্দ্র হয়ে জলঙ্গীর পদ্মা নদী বয়ে চলেছে। আর সেই পদ্মা নদী দেখতে ভিড় জমায় দূরদূরান্তের পর্যটক। ঈদ, পূজো, বড়দিন, মহরমের সময় বহু পর্যটকের ভিড় দেখা যায় এই পদ্মা নদীর তীরে। এই পদ্মা নদীর তীরে তৈরি হয়েছে জলঙ্গী পদ্মা ভবন। এবার পদ্মার তীরে পার্কের দাবি করেন পদ্মার তীরে ঘুরতে আসা প্রকৃতি প্রেমী থেকে স্থানীয় মানুষজন।

Padma River
পদ্মা নদীর তীর। নিজস্ব চিত্র

জলঙ্গী বাজার থেকে করিমপুর যেতে মাত্র এক কিলোমিটার মত গিয়ে জলঙ্গি ব্যাক আর সেই ব্যাকেই ভিড় করে ঘুরতে দেখা যায় হাজার হাজার মানুষকে।

স্থানীয় বাসিন্দা নুরুল হুদা মন্ডল বলেন, সরকারি ভাবে এখানে একটা উদ্যোগ নিয়ে যদি পার্কের ব্যবস্থা করা হয় তাহলে বাইরে থেকে ঘুরতে আসা পর্যটকদের আকর্ষণ বাড়বে। পদ্মা নদীর তীরে বিভিন্ন ধরনের দেখার মত কিছু তৈরি করলে সেটা আরো বেশি ভালো লাগবে বলে মনে করেন তারা।

Tourist spot
জলঙ্গী পদ্মা নদীর তীর। নিজস্ব চিত্র

আরো একজন স্থানীয় বাসিন্দা মাসুম আলী আহম্মেদ জানান, এটা ঐতিহাসিক একটা স্থান, সেটিকে গোটা জেলার সঙ্গে রাজ্যের কাছে তুলে ধরা যেতে পারে। এমনকি ভারত বাংলাদেশ সীমান্তের মাত্র এক কিলোমিটার পরেই বাংলাদেশ। আর এখানে উন্নতমানের পার্ক করলে যেমন পর্যটন এলাকা হিসেবে গড়ে উঠবে। আবার সরকারের আর্থিক সহায়তাও হবে। এমনকি যদি এই পার্কে কিছু স্টল করে দেওয়া যায় তাহলে সেখানে যেমন সরকার ট্যাক্স পাবে। তেমন অনেক বেকার যুবকদের কাজ দেওয়ায় যাবে। এমনকি পদ্মার জলে সরকারি ভাবে নৌকার ব্যবস্থাও করা যেতে পারে।

Jalangi Padma River
নিজস্ব চিত্র

আরো একজন ঘুরতে আসা মহিলা বলেন, এখানে ঘুরতে আসলে ভালো লাগে কিন্তু যদি এখানে সরকারিভাবে পার্কের ব্যবস্থা করা হয় তাহলে আরো ভালো লাগবে। কারণ কোনো ভালো পরিবেশ নেই, বাথরুমের সুব্যবস্থা নেই। তবে পার্ক হলে ভালো হবে।

তৃণমূল কংগ্রেসের ব্লক সভাপতি তথা চোয়াপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান রাকিবুল ইসলাম রকি জানিয়েছেন, “পদ্মা নদীর ধারে একটি পার্ক তৈরি করা হয়েছিল, ওই পরিবেশটা উন্নত নয়। সেই পার্কটাকে দখল করে এখন বিভিন্ন মানুষ কাজ করেন। স্থানীয় মানুষ যদি সহযোগিতা করে তাহলে সব রকমের সাহায্য করতে রাজি আছি। তবে কিছুদিনের মধ্যে পদ্মা নদীর ধারে “আই লাভ জলঙ্গী” সেলফি জোন তৈরি করা হচ্ছে দলীয় ও পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে। যেখানে পদ্মা নদী ঘুরতে আসা মানুষ সেলফি জোনে এসে সেলফি তুলতে পারবে এবং যাতে জলঙ্গীর নাম সকলের মনের কোণে থাকে তারি প্রচেষ্টা মাত্র। আগামী দিনে আরো ভালো কাজ করার চেষ্টা করবো এবং ভাবনার মধ্যে রয়েছে।”

আরও পড়ুনঃ বহরমপুরে বন্ধন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার উদ্যোগে দুঃস্থ শিশুদের নিয়ে বনভোজনের আয়োজন

এখন দেখার কতো দিনে এই পার্ক গড়ে ওঠে জলঙ্গী পদ্মা নদীর তীরে! তারই অপেক্ষায় রয়েছে হাজার হাজার মানুষ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here