বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস, অভিযুক্ত যুবকের বাড়ির সামনে ধর্ণায় প্রেমিকা

0
91

পিয়া গুপ্তা, উত্তর দিনাজপুরঃ

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে শারীরিক সম্পর্কের পর বিয়ে করতে রাজী না হওয়ায় প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসলেন প্রেমিকা। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া থানার ধিয়াগর গ্রামে। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

Dharna for Not agreeing to get married
সইদূল রহমান, স্থানীয় বাসিন্দা। নিজস্ব চিত্র

জানা গেছে,চোপড়া থানার কাচাকলি গ্রামের বাসিন্দা এই যুবতীর সাথে ভালবাসার সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল ধিয়াগর গ্রামের বাসিন্দা মনজর আলমের। দীর্ঘ দুই বছর তাদের এই সম্পর্ক। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে শিলিগুড়ি সহ বিভিন্ন এলাকায় রাত্রিবাস করে।সম্প্রতি মনজর আলমের পরিবারের চাপে সে বিয়ে থেকে পিছিয়ে আসে।এ নিয়ে গ্রাম্য সালিশি থেকে পঞ্চায়েত সালিশি হয়।সবকিছুতেই মনজরকে দোষী সাব্যস্ত করে যুবতীকে বিয়ে করার নিদান দেন।

Dharna for Not agreeing to get married
আমিনা খাতুন, অভিযুক্ত যুবকের মা।নিজস্ব চিত্র

কয়েকদিন যাবৎ মনজরের সঙ্গে কোন যোগাযোগ না হওয়ায় আজ তার বাড়িতে পৌঁছে যায় যুবতী। মনজের পরিবার যুবতীকে মেরে গায়ে লঙ্কার গুঁড় ছিটিয়ে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

Dharna for Not agreeing to get married
এক্রামূল হক, তৃনমূল কংগ্রেস নেতা।নিজস্ব চিত্র

বিয়ে করার দাবিতে মনজরের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসেছে রমিসা।তার দাবি যতক্ষন মনজর তাকে বিয়ে না করছে ততক্ষন সে এখানেই বসে থাকবেন।এলাকার মানুষ এবং স্থানীয় তৃনমূল কংগ্রেস নেতারাও জানিয়েছেন, সর্বসম্মতিক্রমে বিয়ের সিদ্ধান্ত হয়েছিল।সিদ্ধান্ত মেনে না আইনের দ্বারস্থ হবেন।

আরও পড়ুনঃ বাবার সাথে বচসা,ফেসবুকে লাইভ হয়ে আত্মহত্যা যুবকের

Dharna for Not agreeing to get married
অধিকার চেয়ে ধর্ণায় যুবতী।নিজস্ব চিত্র

মনজরের মায়ের অভিযোগ, প্রতিবেশীরা তার ছেলে ফাঁসিয়ে দিয়েছে।ছেলে নির্দোষ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485