প্রতিদিন স্কুল হোক, চাইছেন শিক্ষক থেকে শিক্ষার্থী সকলেই

0
41

জৈদুল সেখ, মুর্শিদাবাদঃ

করোনা সংক্রমণের জেরে প্রায় দু’বছর বন্ধ থাকার পর চারটি শ্রেণির জন্য স্কুল খুলেছে। কিন্ত শুরু থেকেই জেলার বেশ কিছু স্কুলে উপস্থিতির হার খুব কম। স্কুল খোলার দশদিন পরও বুধবার থেকে শুক্রবার পড়ুয়াদের গরহাজিরা নিয়ে চিন্তা কাটেনি শিক্ষকদেরও।

high school

সেই তালিকায় রয়েছে মুর্শিদাবাদের সাহাজাদপুর সারবাগান হাইস্কুল, নামু কান্দি হাইস্কুল, নবগ্রাম কেবিসিএস হাইস্কুল, জীবন্তি উদয়চাঁদ হাইস্কুল সহ একাধিক স্কুল। সাহাজাদপুর সারবাগানের প্রধান শিক্ষক আরসাদুর রহমান বলেন, “মাধ্যমিক অর্থাৎ দশম শ্রেণির মোট শিক্ষার্থী ৪৬৫ জন কিন্তু গড়ে উপস্থিত হচ্ছে ১৯২ জন। যদিও উচ্চমাধ্যমিকের পড়ুয়াদের উপস্থিতি বেশ ভালো।”

Duare Shishak

কিন্তু নতুন রুটিন এবং দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ থাকাকালীন পড়ুয়াদের উপস্থিতি সংখ্যা খুবই শোচনীয়। তাছাড়া গত সপ্তাহ থেকে ছাত্র-ছাত্রীদের দু’ভাগে ভাগ করে দেওয়া হল। সোম, বুধ ও শুক্রবার আসবে দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছাত্রীরা এবং মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার আসবে নবম ও একাদশ শ্রেণীর ছাত্র ছাত্রীরা। ফলস্বরূপ হাজিরা আরো অর্ধেক হয়ে গেল। তাই স্কুলছুটদের ফেরাতে শিক্ষকেরা হাজির হলেন শিক্ষার্থীদের দুয়ারে দুয়ারে।

সেই মতো শনিবার বেলা বারোটা থেকে সাহাজাদপুর সারবাগান হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মাননীয় আরসাদুর রহমান সহ দশজন শিক্ষক শিক্ষিকা এবং সহপাঠীদের সঙ্গে নিয়ে গ্রামের উদ্দেশ্যে পড়ুয়াদের দুয়ারে পৌঁছালেন শিক্ষকেরা। গ্রামে ঘুরতে ও ছাত্র ছাত্রীদের বাড়ি চিনিয়ে দিতে সাহায্য করলো কিছু বর্তমান ও কিছু প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রী। শিক্ষকদের আগ্রহ দেখে অভিভাবক গণ খুব আপ্লুত। শিক্ষকরাও তাদের ব্যবহার ও আপ্যায়নে খুব খুশি হয়েছে বলে জানিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ গ্রেফতার বহরমপুর পৌরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান নীলরতন আঢ্য

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here