সন্দেহজনক এনকাউন্টারগুলি অপরাধ কমানোর পথ নয়, দিল্লি পুলিশকে তিরস্কার আদালতের

0
19

শুভশ্রী মৈত্র, ওয়েব ডেস্কঃ

“সন্দেহজনক এনকাউন্টারগুলিকে অপরাধ নিয়ন্ত্রণের সমাধান হিসাবে ব্যবহার করা যায় না”, পর্যবেক্ষণ দিল্লির এক আদালতের। একজন অভিযুক্ত গ্যাংস্টার রোহিত গেহলটকে পায়ে গুলি করার ঘটনায় চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বিনোদ কুমার মীনা বলেন যে তিনি আশা করেন দিল্লি পুলিশ কমিশনার সিআইডি বা পুলিশের উচ্চ পদস্থ আধিক দ্বারা স্বাধীন ও নিরপেক্ষ তদন্তের নির্দেশ দেবেন এই ঘটনায়।

Delhi Police
ছবিঃ লাইভ ল

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষেত্রে ভারসাম্যযুক্ত দৃষ্টিভঙ্গির প্রয়োজনীয়তার কথা মনে করিয়ে দিয়ে আদালত বলে, “যেকোন পরিস্থিতিতে, সমস্ত নাগরিকের জন্য সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার সংরক্ষণ করতে হবে। সন্দেহজনক এনকাউন্টারগুলিকে অপরাধ নিয়ন্ত্রণের সমাধান হিসাবে ব্যবহার করা যায় না।“ আদালত আরও বলে যে, এই মামলার সাক্ষ্য প্রমাণে এমন বহু উপাদান রয়েছে, যা এই এনকাউন্টারটিকে যথেষ্ট সন্দেহজনক করে তুলেছে।

আরও পড়ুনঃ শপথ নেওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে পদত্যাগ করেন সুইডেনের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রী

গেহলটের আইনজীবী আদালতকে বলেন যে পুলিশ অভিযুক্তকে তাঁর বাড়ি থেকে একটি গাড়িতে করে পুলিশ নিয়ে যায় এবং গাড়িটি ছিল কনস্টেবল কুলবন্ত সিংয়ের। তিনিই গেহলটের পায়ে গুলি করেছিলেন। তবে সরকারি আইনজীবী যুক্তি দেন যে কুলবন্ত সিং-ই একমাত্র ব্যক্তি যিনি বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট পরেছিলেন এবং এনকাউন্টারে তার জ্যাকেটেও একটি বুলেট লাগে।

আরও পড়ুনঃ ভুয়ো ও বিদ্বেষমূলক খবর সম্প্রচারের জেরে NBDSA -এর কড়া নির্দেশের মুখে জি নিউজ ও সুধীর চৌধুরী

অন্যদিকে, গেহলট আদালতকে বলেন যে, ১নভেম্বর ডিসিপির সাথে দেখা করার কথা বলে চারজন পুলিশ আধিকারিক তাঁকে বাড়ি থেকে নিয়ে যান। শেষে উত্তম নগরে নিয়ে গিয়ে পুলিশ তাঁর চোখ বেঁধে দিয়ে তার পায়ে গুলি করে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here