শখে গড়া দুর্গা প্রতিমায় পূজিত হন দেবী

0
12

পিয়া গুপ্তা, উত্তর দিনাজপুরঃ

Dipankar Pal | newsfront.co
দীপঙ্কর পাল। নিজস্ব চিত্র

ছোট থেকেই হাতের কাজে প্রবল আগ্রহ ছিল দীপঙ্করের। সেই নেশার টানেই গতবছর সে গড়ে ফেলে এক ফুট দীর্ঘ একটি ছোট্ট দুর্গা প্রতিমা। বংশে কেউ মৃৎশিল্পী ছিলেন না। ছোট থেকে কোথাও মূর্তি গড়ার তালিম নিয়েছে তা-ও নয়। তবুও কচি হাতে দুর্গা প্রতিমা গড়ে তাক লাগিয়েছে ছোট্ট দীপঙ্কর।

Dipankar Pal | newsfront.co
প্রতিমা নির্মানে মগ্ন দীপঙ্কর পাল। নিজস্ব চিত্র

প্রথম দিকে মা–বাবার আপত্তি থাকলেও এখন ছেলের জেদের কাছে হার মেনেছেন তাঁরাও।ছেলেটির নাম দীপঙ্কর পাল। কালিয়াগঞ্জ পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের পালপাড়ার গা-ঘেঁষে যে বস্তি এলাকা, সেখানকারই বাসিন্দা সে।

Father of Dipankar Pal | newsfront.co
জীবন পাল, দীপঙ্করের বাবা। নিজস্ব চিত্র

বাবা জীবন পাল চটের বস্তা বিক্রি করে কোনওক্রমে সংসার সামলান। মা নিপাট গৃহবধূ। দীপঙ্কর এখন কালিয়াগঞ্জ সরলা সুন্দরী উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র। ছোট থেকেই হাতের কাজে প্রবল আগ্রহ ছিল । সেই নেশার টানেই গত বছর সে গড়ে ফেলে এক ফুট দীর্ঘ একটি দুর্গা প্রতিমা। একা দু্র্গা অবশ্য নন, দীপঙ্করের গড়া প্রতিমায় দুর্গার সঙ্গেই ছিলেন কার্তিক-গণেশ ও লক্ষ্মী-সরস্বতী। দীপঙ্কর জানায়, গত বছর খেলার ছলে কিছু মাটি নিয়ে এসে বাড়িতেই আঁকিবুকি করতে করতে মাটি দিয়ে সে তৈরি করে ফেলেছিল আস্ত একটি দুর্গাপ্রতিমা।

Mother of Dipankar Pal | newsfront.co
পদ্মা পাল, দীপঙ্করের মা। নিজস্ব চিত্র

এরপর তখন তাকে নাকি স্বপ্নাদেশ দেওয়া হয় যে তার তৈরি সেই প্রতিমায় তাকে করতে হবে পূজা!আর তখনই বাড়ির মানুষরা চারদিনের প্রস্তুতিতে দীপঙ্করের গড়া প্রতিমাতেই বাড়িতেই করে ফেলে দুর্গাপূজা। সেই থেকে শুরু তার হাতে খড়ি দুর্গা প্রতিমা বানানো। পড়াশোনার ফাঁকে ফাঁকে সে এই ধরনের কাজ করতে বরাবরই আগ্রহী ছিল সেটা তিনি জানাতে ভোলেননি।

দীপঙ্করের বাবা জীবন পাল বলেন বলেন, “ছেলে পড়াশোনা বাদ দিয়ে মূর্তি গড়বে এই বিষয়ে আমাদের আপত্তি ছিল। কিন্তু তার জেদের কাছে আমরা হেরে গিয়েছি। তাই এখন আর তেমন আপত্তি তুলি না।“

কিন্তু মূর্তি গড়া হলে তার পুজোও করতে হয়। কিন্তু কীভাবে হবে সেই পুজো- চিন্তায় পড়েন দীপঙ্করের পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু শেষে তার হাতে তৈরি গতবারের দুর্গা প্রতিমা তে যেমন পুজো হয়েছে বাড়ির এবারও তার হাতে তৈরি প্রতিরাতেই বাড়িতে পুজো হবে। তিনি বলেন তার ছেলের আগ্রহ দেখে তারা খুব খুশি। পড়াশোনার ফাঁকে ফাঁকে সে যে এত সুন্দর কাজ করতে পারবে তাদের সেটা ধারনার বাইরে ছিল। শেষে তার তৈরীর প্রতিমাসেই গতবারের মতো এবারও পুজো হবে বাড়িতে।

আরও পড়ুনঃ বাঁকুড়ার ডোকরা শিল্পের আদলে প্রতিমা নির্মানে রত বিষ্ণুচন্দ্র

দীপঙ্কর একেবারে জাত শিল্পীর মতো এবারও তার বাড়ীতে তৈরি করছে পড়াশোনার ফাঁকে ফাঁকে এবার আর ছোট্ট দুর্গা নয় এবার বড় দুর্গা প্রতিমা। অবশ্য এইটুকুতেও তৃপ্ত হওয়ার ছেলে নয় দীপঙ্করের। কলকাতার নামজাদা মণ্ডপের প্রতিমা গড়বে একদিন— এমন স্বপ্নই ভাসে তার চোখে। নিজের প্রতিভার জোরে সেই স্বপ্ন পূরণ সম্ভব বলেই দৃঢ় বিশ্বাস দীপঙ্করের।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485