২০২৪-২০৩১ সাল পর্যন্ত সাত বছরে আয়োজিত হবে আটটি বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট, ঘোষণা আইসিসির

0
20

শরীয়তুল্লাহ সোহন, ওয়েব ডেস্কঃ

বিশ্ব ক্রিকেট সংস্থা আইসিসি ঘোষণা করলো ২০২৪ সাল থেকে ২০৩১ সালের মধ্যে অনুষ্ঠিত সমস্ত বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের আয়োজকদের নাম ও সাল। তাঁর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য, ভারতের সঙ্গে যৌথভাবে ২০৩১ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজনে সহযোগিতা করবে বাংলাদেশ। ২০২৪ থেকে ২০৩১ সালের ছেলেদের বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের স্বাগতিকদের নাম আজ অফিসিয়ালি ঘোষণা করেছে আইসিসি। এ চক্রে সর্বোচ্চ তিনটি টুর্নামেন্ট আয়োজন করবে ভারতীয় বোর্ড বিসিসিআই।

BCB BCCI
২০৩১ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপের আয়োজনে ভারত-বাংলাদেশ

সব মিলিয়ে এই সাত বছরে হবে আটটি বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট, আয়োজক হবে ১৪টি দেশ। এই ১৪টি দেশের মধ্যে ১১টি পূর্ণ সদস্য, বাকি তিনটি সহযোগী দেশ। প্রথমবারের মতো আইসিসির বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট আয়োজন করবে যুক্তরাষ্ট্র ও নামিবিয়া। একমাত্র পূর্ণ সদস্য হিসেবে আফগানিস্তানই কোনো বৈশ্বিক ট্রফির আয়োজক থাকছে না। ২০২৪ থেকে ২০৩১ সাল পর্যন্ত এই চক্রে সব মিলিয়ে হবে দুটি ওয়ানডে বিশ্বকাপ, চারটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও দুটি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি অনুষ্ঠিত হবে।

বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি ও ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের সভাপতি রিকি স্কেরিটের সঙ্গে মার্টিন স্নেডেনের নেতৃত্বে একটা উপকমিটি প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক আয়োজক নির্বাচনের প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বেছে নিয়েছে স্বাগতিক দেশগুলো। আইসিসির ব্যবস্থাপনায় আগ্রহী দেশগুলোর ব্যাপারে যাচাই-বাছাই করে দেখার পর নেওয়া হয়েছে এমন সিদ্ধান্ত।

২০৩১ সালে ভারত ও বাংলাদেশের যৌথ আয়োজনের বিশ্বকাপই এই চক্রে আইসিসির শেষ বৈশ্বিক ইভেন্ট। সর্বশেষ ২০১১ সালে উপমহাদেশে হয়েছিল বিশ্বকাপ। সেবার ভারতের সঙ্গে ছিল বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কাও। উক্ত বিশ্বকাপে মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বে ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপ এর স্বাদ পেয়েছিল গোটা দেশ। ফাইনালটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল মুম্বাই-এর ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে।

এই চক্রে একমাত্র ভারতই আয়োজক হিসেবে থাকবে তিনটি বৈশ্বিক টুর্নামেন্টেই। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও ওয়ানডে বিশ্বকাপ যৌথভাবে আয়োজনের সঙ্গে একটি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি এককভাবে আয়োজন করবে তারা।২০২৪ থেকে ২০৩০ সাল পর্যন্ত প্রতি দুই বছর পর পর হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ২০০৭ সালে শুরু হওয়া এই টুর্নামেন্টের প্রতিবারই ছিল একক আয়োজক (২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে হলেও এর মূল আয়োজক ছিল ভারতই)। এমনকি ২০২২ সালে অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে একক আয়োজক হিসেবে থাকছে অস্ট্রেলিয়া।

তবে পরের চক্রে অর্থাৎ ২০২৪ সাল থেকে প্রতিটি আসরই হবে যৌথ আয়োজনে। ২০২৪ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে ২০১০ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ২০২৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হবে ভারত ও শ্রীলঙ্কায়, ২০২৮ সালে হবে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে। ২০৩০ সালে এটি হবে ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড ও স্কটল্যান্ডে।

আয়োজক সাল এবং টুর্নামেন্ট:

১. জুন, ২০২৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, আয়োজনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং যুক্তরাষ্ট্র।

২. ফেব্রুয়ারি, ২০২৫ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি, আয়োজনে পাকিস্তান।

৩. ফেব্রুয়ারি, ২০২৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, আয়োজনে ভারত ও শ্রীলঙ্কা।

৪. অক্টোবর-নভেম্বর, ২০২৭ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ, আয়োজনে দক্ষিণ আফ্রিকা, জিম্বাবুয়ে এবং নামিবিয়া।

৫. অক্টোবর, ২০২৮ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, আয়োজনে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড।

৬. অক্টোবর, ২০২৯ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি, আয়োজনে ভারত।

৭. জুন, ২০৩০ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, আয়োজনে ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড ও স্কটল্যান্ড।

৮. অক্টোবর-নভেম্বর ২০৩১ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ, আয়োজনে ভারত ও বাংলাদেশ।

আরও পড়ুনঃ ঘোষিত হয়ে গেল আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ভেন্যু ও দিনক্ষণ

এই চক্রে হবে দুটি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি। ২০২৫ সালের আসরটি হবে পাকিস্তানে, চার বছর পর আরেকটি আসর হবে ভারতে। ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপের পর এই প্রথম আইসিসির বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট ফিরছে পাকিস্তানে।
২০২৩ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপের আয়োজক আগে থেকেই ভারত। ২০২৭ সালে পরবর্তী বিশ্বকাপ হবে আফ্রিকায়- দক্ষিণ আফ্রিকা, জিম্বাবুয়ে ও নামিবিয়া আয়োজন করবে যৌথভাবে। এর আগে সর্বশেষ ২০০৩ সালের বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকায়, সঙ্গে ছিল জিম্বাবুয়ে ও কেনিয়া।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here