কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবে সাংবাদিক নিগ্রহ

0
25

নিউজফ্রন্ট, ওয়েবডেস্কঃ

অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ২৫ তম আন্তর্জাতিক কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসব। ৮-১৫ নভেম্বর এই আটদিনের জমজমাট উৎসবে ভিড় ছিল প্রতিবারের মতোই। কিন্তু যতদিন যাচ্ছে, ফেস্টিভ্যালের মজা, উদ্দীপনার পাশাপাশি দুর্ঘটনার সংখ্যাও বাড়ছে। এবারের উৎসবের ষষ্ঠ দিনে এক সাংবাদিক নিগ্রহের ঘটনা ঘটল ফেস্টিভ্যালের কয়েকজন ডেলিগেটের বিরুদ্ধে।

journalist harassment in kolkata Film festival | newsfront.co
চিত্র সৌজন্যঃ ফেসবুক

দুই সাংবাদিকের সঙ্গে একজন ডেলিগেটের বচসা শুরু হয় নন্দন-১ এর ৫ টার শো শুরু হওয়ার ঠিক আগে। পরিস্থিতি খারাপ হতে শুরু করলে, সাংবাদিকদের শারীরিক আঘাত করা হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে। শো শেষ হওয়ার পর ঘটনাস্থল থেকে অভিযুক্তদের সরিয়ে নিয়ে যায় পুলিশ।

নন্দন-১ প্রেক্ষাগৃহের শো-গুলি ডেলিগেট, অতিথি ও সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিদের জন্য সংরক্ষিত। ১৪ নভেম্বর বিকেলে প্রেক্ষাগৃহে শো শুরু হওয়ার মুহূর্তে দু’জন সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধি ও কয়েকজন ডেলিগেটদের মধ্যে সিট রিজার্ভ করা নিয়ে কথা কাটাকাটি শুরু হয়।

আরও পড়ুনঃ পুলিশের বিরুদ্ধে সাংবাদিক নিগ্রহের অভিযোগে উত্তেজনা কোচবিহারে

এমনিতেও চলচ্চিত্র উৎসবে শেষ দুই বছর ধরে দর্শকদের ভিড় স্বাভাবিকের তুলনায় অনেক বেশি বেড়েছে। এমনকি ফ্রি পাস, ডেলিগেট, গেস্ট দর্শক ছাড়াও তথাকথিত সিনেফিল নন যাঁরা, তাঁরাও উৎসবে আসতে শুরু করেছেন। ফলত শো শুরু হওয়ার আগে সিট রাখা, না রাখা নিয়ে অল্প বিস্তর ঝামেলা হয়েই থাকে প্রতি বছর। সিনেমাপ্রেমীদের কাছে এ বিষয় নতুন নয়।

উৎসবের এই শো গুলিতে লাইনে দাঁড়িয়ে ‘ফার্স্ট কাম ফার্স্ট সার্ভড’ ভিত্তিতেই সবাই সিটে বসেন। এক্ষেত্রেও জনৈক ডেলিগেট প্রেক্ষাগৃহে ঢোকার পর হেলমেট রেখে সিট রিজার্ভ করার চেষ্টা করেন বলে জানা গেছে।

ওই সময়েই সাংবাদিকরা এসে প্রতিবাদ করায় দু’পক্ষের বচসা শুরু হয়। জানা গিয়েছে, ওই ডেলিগেট এবং তাঁর সহযোগীরা সাংবাদিকদের শারীরিকভাবে আঘাত করেন। বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য উৎসব কমিটিকে সতর্ক করেন ওই দুই সাংবাদিক এবং উপস্থিত অন্যান্য সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা।

সাংবাদিকদের নিগ্রহের প্রতিবাদে তাঁরা প্রয়োজনে উৎসবের সাংবাদিক সম্মেলন বয়কট করারও সিদ্ধান্ত নেন। ঘটনাস্থলে অবিলম্বে পৌঁছয় নন্দনের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ। শো শেষ হওয়ার পরে অভিযুক্তদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় নন্দন চত্বর থেকে। এই ঘটনার পরেই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন।

একটি জাতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে, যে দুই ডেলিগেটের সঙ্গে এই বচসা বাঁধে, তাঁদের মধ্যে একজন সত্যজিৎ রায় ফিল্ম ইন্সটিটিউটের প্রাক্তন ছাত্র, যিনি বর্তমানেও ওই চলচ্চিত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেই যুক্ত। পুরো ঘটনা শুনে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করছেন উৎসবের চেয়ারম্যান রাজ চক্রবর্তী।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here