বলিউডের আকাশ হারাল আরেক নক্ষত্র, নাম দিলীপ কুমার

0
99

নবনীতা দত্তগুপ্ত,বিনোদন ডেস্কঃ

দিন কয়েক আগে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হন বলিউডের প্রবাদপ্রতিম, কিংবদন্তি অভিনেতা দিলীপ কুমার। সাম্প্রতিক খবরে জানা গিয়েছিল ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছেন তিনি। হঠাতই চিত্র পরিবর্তন। শেষ রক্ষা হল না আর। মুম্বইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালে আজ (৭ জুলাই) সকাল ৭ টা নাগাদ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন দিলীপ কুমার। মৃত্যুকালে কিংবদন্তির বয়স হয়েছিল ৯৮ বছর। জীবনের শেষ দিন অবধি অভিনেতার পাশে ছিলেন তাঁর স্ত্রী তথা কিংবদন্তি অভিনেত্রী সায়রা বানু।
সূত্রের খবর অনুযায়ী, শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার কারণে গত মাসে দু’বার হাসপাতালে ভরতি হতে হয় অভিনেতাকে। চিকিৎসকরা অভিনেতার পরিবারকে জানান, দিলীপ কুমারের দুটি ফুসফুসেই জল জমে রয়েছে। করোনা পরীক্ষা করা হলে তার রিপোর্ট অবশ্য নেগেটিভ আসে। সব ঠিক থাকলে বাড়ি ফেরার কথা ছিল অভিনেতার। কিন্তু বাড়ি ফেরা হল না। বলিউড শোকস্তব্ধ কিংবদন্তি অভিনেতার মৃত্যুতে।

অভিনেতার জীবনপঞ্জীর দিকে তাকালে জানা যায়, তাঁর আসল নাম মহম্মদ ইউসুফ খান। ১৯২২ সালের ১১ ডিসেম্বর পাকিস্তানের পেশোয়ারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তাঁর সুদীর্ঘ অভিনয়জীবনের প্রথম ছবি ‘জোয়ার ভাটা’। এরপর একে একে অসংখ্য ছবিতে তাঁর উজ্জ্বল উপস্থিতি সমৃদ্ধ করেছে বলিউডকে। ‘জুগনু’, ‘আন্দাজ’, ‘দিদার’, ‘দাগ’, ‘দেবদাস’, ‘আন’, ‘ইনসানিয়াত’, ‘কোহিনুর’, ‘মুঘল-ই-আজম’, ‘সাগিনা’, ‘গঙ্গা যমুনা’, ‘মধুমতী’, ‘ক্রান্তি’, ‘সওদাগর’, ‘বিধাতা’, ‘কর্মা’ সহ একাধিক ছবি রয়েছে অভিনেতার ঝুলিতে, যার সংখ্যা নির্ণয় বাতুলতা মাত্র। পুরস্কারের ঝুলিও পরিপূর্ণ। ‘দাদাসাহেব ফালকে’ থেকে শুরু করে ‘নিশান-ই-ইমতিয়াজ’ সহ বহু পুরস্কারে ভূষিত হন তিনি। পরিসংখ্যান বলে, তিনিই সবচেয়ে বেশি সংখ্যক পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

dilip kumar with his wife

স্ত্রী-অভিনেত্রী সায়রা বানুর সঙ্গে অভিনেতা দিলীপ কুমার। ছবিঃ সংগৃহীত

কিংবদন্তি অভিনেতার মৃত্যুতে কেবল শোকের ছায়া বলিউডে এমনটা নয়, টলিউডেও তাঁর ভক্তসংখ্যা অগণিত। অভিনেতার মৃত্যু সংবাদে সোশ্যাল মিডিয়ায় শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন টলিউডের অভিনেতারাও।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here