টিকার ‘পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া’ ও ‘ব্যয়ভার’ নিয়ে মোদীকে প্রশ্ন মুখ্যমন্ত্রীর

0
31

নিজস্ব সংবাদদাতা, ওয়েব ডেস্কঃ

শেষ পর্যন্ত টিকাকরণ বৈঠকে নিজের সংশয়ের কথা প্রধানমন্ত্রী মোদীকে জিজ্ঞাসাই করে ফেললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টিকাকরণ প্রসঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে মমতার সোজাসুজি প্রশ্ন মোদীকে। দেশবাসীকে আতঙ্কমুক্ত করতে টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে কিনা সে নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী।

Modi with Mamata | newsfront.co
কোলাজ চিত্র

সঙ্গে জানান, ভ্যাকসিনকে চূড়ান্ত ছাড়পত্র দেওয়ার আগে বিজ্ঞানসম্মত মতামত নেওয়া দরকার। ছাড়পত্র মেলা দুটি টিকার যথাযথ বৈজ্ঞানিক নথি-প্রমাণ আছে কিনা তাও জিজ্ঞাসা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এরপর মমতা জানতে চান, প্রথম সারির করোনা যোদ্ধা ছাড়া বাকি দেশবাসীর টিকাকরণের ব্যয়ভার বহনের দায়িত্ব কার!

বৈঠকে মমতা বন্দোপাধ্যায় বলেন, কোন দুটো টিকা দেশবাসীকে দেওয়া হবে, তা কেন্দ্রই ঠিক করে দিয়েছে। রাজ্যকে সিদ্ধান্ত নিতে সিদ্ধান্ত নিতে দেওয়া হয়নি। ভ্যাকসিনকে চূড়ান্ত ছাড়পত্র দেওয়ার আগে বিজ্ঞানসম্মত মতামত নেওয়া দরকার। এরপরেই কোভিশিল্ড ও কোভ্যাকসিনের কার্যকারিতা নিয়ে যথাযথ বৈজ্ঞানিক নথিপ্রমাণ আছে কিনা সে প্রশ্ন তোলেন মমতা। এরপরই মুখ্যমন্ত্রী জানতে চান, “দুটি ভ্যাকসিনের কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে কি?তাহলে তা আগে থেকে জানানো দরকার।”

আরও পড়ুনঃ ২০ লক্ষ ‘ভুল হাতে’ প্রধানমন্ত্রী কৃষক সম্মান নিধির ১,৩৬৪ কোটি টাকাঃ আরটিআই রিপোর্ট

৩ কোটি প্রথম সারির করোনাযোদ্ধাকে বিনামূল্যে টিকা দেওয়ার কথা এদিনের বৈঠকেই জানান প্রধানমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানতে চান, ফ্রন্টলাইন কর্মীদের না হয় বিনামূল্যে টিকা দেওয়া হল, কিন্তু দেশবাসীর কী হবে?

তিনি প্রশ্ন তোলেন এক্ষেত্রে টিকাকরণের খরচ রাজ্যকে দিতে হবে কিনা। মমতার প্রশ্নের উত্তর স্পষ্ট ভাবে পাওয়া যায়নি, তবে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন যে টিকাকরণ সংক্রান্ত পরবর্তী পদক্ষেপ কি হবে সে নিয়ে দ্বিতীয় দফায় বৈঠক হবে।

আরও পড়ুনঃ করোনা থাবায় প্রথম মৃত্যুর এক বছর অতিক্রান্ত, আজও অজানা ভাইরাসের উৎপত্তি

১৬ জানুয়ারি থেকে দেশজুড়ে শুরু হচ্ছে কোভিড টিকাকরণ। তার আগে টিকাকরণ সংক্রান্ত প্রস্তুতি ও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা সারতে সোমবার সব রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে করেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে তিনি জানান, ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতেই পারে। সেই পরিস্থিতি মোকাবিলায় পর্যাপ্ত ব্যবস্থাও রয়েছে।

কোভিড টিকার কার্যকারিতা নিয়ে বিভ্রান্তি-সংশয় দূর করেছেন নীতি আয়োগের সদস্য অধ্যাপক বিনোদকে পাল। তিনি জানিয়েছেন, দুটি করোনা টিকাই ১০০ শতাংশ কার্যকর ও নিরাপদ।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, টিকাকরণের জন্য রাজ্য সরকার প্রস্তুত। মঙ্গলবার থেকে জেলায় জেলায় টিকা পোঁছানোর কাজ শুরু হবে। প্রথম ধাপে যে ৪৪ হাজার সরকারি-বেসরকারি স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা দেওয়া হবে তাঁদের সম্পূর্ণ তালিকাও তৈরি রাজ্যের।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here