১৬ লক্ষ টাকা বিল মিটিয়েও মৃত্যু করোনা আক্রান্ত ডাক্তারের, ফের মৃত্যু পুলিশকর্মীরও

0
26

শুভম বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতাঃ

একদিকে করোনা আতঙ্ক আর অন্যদিকে হাসপাতালের মাত্রাছাড়া বিলের জেরে রীতিমত নাজেহাল অবস্থা শহরবাসীর। এর মধ্যেই বেসরকারি হাসপাতালে বিপুল পরিমাণ বিল মিটিয়েও ফের কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে এসে মৃত্যু হল এক নামজাদা চিকিৎসকের।

Corona dead body | newsfront.co
প্রতীকী চিত্র

জানা গিয়েছে, সীতাংশুশেখর পাঁজা (৬৫) নামে ওই ব্যক্তি কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে স্ত্রীরোগ বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ছিলেন। শনিবার কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর। করোনা আক্রান্ত হয়ে ফের মৃত্যু হল ট্রাফিক গার্ডের কনস্টেবল দীপঙ্কর সরকার নামে এক পুলিশকর্মীর।

Dipankar Sarkar | newsfront.co
দীপঙ্কর সরকার। সংবাদ চিত্র

সীতাংশুবাবুর পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হওয়ার আগে দমদমের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। সেখানে চিকিৎসকের পরিবারের হাতে ২৪ লক্ষ টাকার বিল ধরানো হয়। কিন্তু সীতাংশুবাবুর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে।

তখন একপ্রকার বাধ্য হয়েই স্বাস্থ্য ভবনের সঙ্গে যোগাযোগ করেন ওই চিকিৎসকের পরিবার। তাদের মধ্যস্থতায় কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় বর্ষীয়ান ওই চিকিৎসকে। কিন্তু তাতেও শেষরক্ষা হয়নি। করোনার মারণ থাবায় প্রাণ হারান দমদমের বাসিন্দা কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের প্রাক্তন চিকিৎসক সীতাংশু শেখর পাঁজা (৬৫)। এদিকে ওই হাসপাতাল ২৪ লক্ষ টাকার বিল ধরালেও ১৬ লক্ষ টাকা দিতে হয় পরিবারকে।

আরও পড়ুনঃ রাতের কলকাতায় মদ্যপদের বচসা থামাতে গিয়ে নিহত সিভিক ভলান্টিয়ার, আটক ৩

পরিবার সূত্রে খবর, সীতাংশু শেখর পাঁজা কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে দীর্ঘ ১৮ বছর স্ত্রীরোগ বিভাগে সুনামের সঙ্গে কাজ করেছেন। অবসরের পর দমদমের ওই বেসরকারি হাসপাতালে যুক্ত হন। গত ২৬ জুন করোনা আক্রান্ত হন তিনি। স্বাভাবিকভাবেই দমদমের ওই বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় চিকিৎসকে। দু-বার ভেন্টিলেশনে দিতে হয়। দিনের পর দিন হাসপাতালে চিকিৎসা চলায় বিল সাধ্যের বাইরে চলে যায়।

আরও পড়ুনঃ অগাস্টে ১৭ দিন বন্ধ থাকছে ব্যাঙ্ক পরিষেবা

২৪ লক্ষ টাকা বিল হওয়ার পর পরিবারের পক্ষে সেই টাকা মেটানোর আর ক্ষমতা ছিল না। এরপরই চিকিৎসকের পরিবারের তরফে যোগাযোগ করা হয় স্বাস্থ্যভবনে। ১৬ লক্ষ টাকা বিল মেটানোর পর চিকিৎসক সীতাংশু শেখর পাঁজাকে ২৪ জুলাই কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানেই শনিবার রাতে মৃত্যু হয় একসময়ে আরজি করের ছাত্র এই প্রাক্তনীর।

অন্যদিকে, করোনা আক্রান্ত হয়ে ফের পুলিশ কর্মীর মৃত্যু হল জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডের কনস্টেবল দীপঙ্কর সরকারের। বাইপাসের ধারে একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

শরীরে উপসর্গ থাকায় করোনা পরীক্ষা করান তিনি। রিপোক্ট পজেটিভ আসে তাঁর। এরপর হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে তাঁর। রবিবার সকালে মৃত্যু হয় দীপঙ্করবাবুর। এই নিয়ে ৮ জনের মৃত্যু হল কলকাতা পুলিশে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485