আমাকে কারোর সঙ্গে জড়াবেন না, ডাকলে আবার আসব- জানালেন রাজীব

0
149

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলকাতাঃ

তৃণমূল কংগ্রেস এই সময় শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে যথেষ্টই অস্বস্তিতে। এর মাঝে মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্য আরোই অস্বস্তি বাড়িয়েছে তৃণমূলের। কলকাতা-সহ বিভিন্ন জেলায় শুভেন্দু-রাজীবের ছবির পোস্টার, এই বিতর্ক সামলাতে মরিয়া দলীয় নেতৃত্ব।

পরিস্থিতি সামাল দিতে রবিবার তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে প্রশান্ত কিশোরের উপস্থিতিতে বৈঠক হয় মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের। বৈঠক শেষে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, “দলে থাকলে ক্ষোভও থাকবে। তা নিয়ে আলোচনা হবে। ডাকলে আবার আসব।“

rajib banerjee | newsfront.co
ফাইল চিত্র

রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই জোর জল্পনা চলছিল, তিনি দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেবেন কিনা এই নিয়ে। সেই পরিস্থিতিতে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শাসক দলের মাথাদের বৈঠক যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। তবে এদিনের বৈঠক শেষে, “ক্ষোভ থাকতেই পারে। দলের মহাসচিব আলোচনায় ডেকেছিলেন। কথা হয়েছে। দলীয় কর্মসূচি নিয়েও আলোচনা হয়। ডাকলে আবার আসব।” রাজীবের এই মন্তব্যও যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

আরও পড়ুনঃ ২১-এ নাড্ডাজী মুখ্যমন্ত্রীকে গাড্ডায় ফেলবে, কটাক্ষ অগ্নিমিত্রার

দিন কয়েক আগে দক্ষিণ কলকাতার এক ‘অরাজনৈতিক মঞ্চ’ থেকে দলীয় নেতৃত্বকে কটাক্ষ করে বনমন্ত্রী বলেছিলেন, “স্তাবকতা করলেই নম্বর বাড়ে। ভালকে খারাপ, খারাপকে ভাল বলতে পারি না, তাই আমার নম্বর কম। অন্যদের বেশি।“ এরই সঙ্গে প্রকাশ্যেই মুখ খুলেছিলেন শুভেন্দু অধিকারীর হয়ে।

দলীয় নেতৃত্বকে উদ্দেশ্য করে স্পষ্ট ভাষায় বলেছিলেন যে, “এমন কিছু লোক দলের নেতৃত্বে রয়েছেন যাঁদের মানুষ পছন্দ করে না। একের পর এক এমন সব মন্তব্যের ফলে শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে তৃণমূলের ‘বিদ্রোহী’দের তালিকায় নাম যোগ হয় রাজীব বন্দ্যোপাধ্যেয়ের। শেষমেশ এদিনের বৈঠক। তাহলে কি মিটলো ক্ষোভ!! এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেছেন, “আমাকে কারোর সঙ্গে জড়াবেন না।“

আরও পড়ুনঃ শান্তনুর মানভঞ্জনে ঠাকুরবাড়িতে হাজির কৈলাস বিজয়বর্গীয়

কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় শুভেন্দু অধিকারীর সমর্থনে যেমন পোস্টার ছড়িয়ে পড়েছে, তেমনই তাঁর ছবি দিয়েও পোস্টার দেখা গেছে।এমনকী দু’জনের ছবি একসঙ্গে দিয়েও পোস্টার দেখা গেছে, যা নিয়ে প্রবল অস্বস্তিতে পড়েছিল তৃণমূল শিবির। এই সব পোস্টার কারা ছড়ালো প্রশ্ন করা হলে রাজীব বলেন, “এইসব বিষয়কে আমি সমর্থন করি না। কারা এগুলো লাগাচ্ছে জানি না।“

তবে এদিনের বৈঠক শেষে নেতৃত্বের বিরুদ্ধে কোন ক্ষোভ দেখা যায়নি রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায়, বরং দলের কর্মসূচিতে যোগদানের বিষয়ে ইতিবাচক কথাই জানিয়েছেন তিনি। আশা করা যাচ্ছে বৈঠক ফলপ্রসূ হয়েছে এবং তাঁর ক্ষোভও প্রশমিত, যা এই মুহূর্তে স্বস্তিদায়ক দলের পক্ষে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here