রাজনৈতিক হিংসায় উত্তপ্ত শীতলখুচির ভাওর থানা এলাকা

0
33

মনিরুল হক, কোচবিহারঃ

political violence at sitalkhuchi | newsfront.co
নিজস্ব চিত্র

রাজনৈতিক হিংসা অব্যাহত শীতলখুচিতে। ফের এই ব্লকের ভাওর থানা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ফকিরডাঙ্গা মাগুরা বাজারে দোকান ভাঙচুরের অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

political violence at sitalkhuchi | newsfront.co
নিজস্ব চিত্র

বৃহস্পতিবার ওই এলাকায় বেশ কিছু দোকান ভাঙচুর করা হয় একই সাথে বাইক ও ছিনতাইয়ের অভিযোগ ওঠে।

political violence at sitalkhuchi | newsfront.co
নিজস্ব চিত্র

এই ঘটনায় সিপিএম নেতা সদানন্দ রায় এবং সাহেব বর্মনের উপরেও আক্রমণ করা হয় বলে অভিযোগ। বর্তমানে তারা মাথাভাঙ্গা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বাজারে গোলমালের পাশাপাশি ওই এলাকার বেশ কিছু বাড়ি ঘরও ভাঙচুর করা হয়। অভিযোগ বিজেপি কর্মীরা তৃনমূলের ওই বাড়ি ঘরে ভাঙচুর চালায়। কিন্তু হঠাৎ করে পদ্ম ও ঘাসফুলের এই ঝগড়ায় কেন আক্রান্ত হল সিপিএম নেতা এ নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন।

political violence at sitalkhuchi | newsfront.co
নিজস্ব চিত্র

ভারতীয় জনতা পার্টির কোচবিহার জেলা নেতা হেমচন্দ্র বর্মণ বলেন, গত ২১ দিন ধরে তৃনমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা লাগাতার সন্ত্রাস চালিয়ে যাচ্ছে। পুলিশ সব জেনেও নিশ্চুপ থেকে তাদের মদত জুগিয়ে যাচ্ছে।
লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকে গোটা জেলা জুড়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক সংঘর্ষ।

গ্রামীণ রাজনৈতিক ক্ষমতা কার দখলে থাকবে এই নিয়ে বিজেপি তৃনমূলের সংঘর্ষের ঘটনা এখন প্রতিদিনের। শীতলখুচি ব্লকের এই ঘটনা নতুন নয়, গত টানা ২১ দিন থেকে নানা ইস্যুতে এই গোলমাল চলছে। এদিনের ঘটনা হঠাৎ করে হলেও তা বিজেপি তৃনমূল দ্বন্দ্বের বহিঃপ্রকাশ বলে মনে করছে সাধারন মানুষ।

আরও পড়ুনঃ জল সরবরাহ বন্ধ হওয়ায় ক্ষোভ বাড়ছে এলাকাবাসীদের

তৃনমূলের বিরুদ্ধে ওঠা এই অভিযোগকে সম্পূর্ণ ভাবে অস্বীকার করেছে দল। বিধায়ক হিতেন বর্মণ বলেন আমি এই মুহূর্তে বাইরে রয়েছি। তবে দলের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে তা মিথ্যা। এখানে বিজেপি সাম্প্রদায়িক রাজনীতি শুরু করতে যাচ্ছে এবং সর্বত্র গোলমাল পাকাতে চাইছে এটা তারই বহিঃপ্রকাশ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here