পরিস্থিতি বিচারে কোয়ারেন্টাইন নিয়মে রাজ্যে রাজ্যে ঘটছে রদবদল

0
36

নিজস্ব সংবাদদাতা, ওয়েব ডেস্কঃ

করোনার ভাইরাসের চরিত্র, সংক্রমণের পদ্ধতি সব কিছুতেই অনেক বার পরিবর্তন ঘটেছে। মার্চ মাসের থেকে অনেকটাই পাল্টেছে সাম্প্রতিক পরিস্থিতি। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা।

Quarantine | newsfront.co
প্রতীকী চিত্র

সেপ্টেম্বরের প্রথমে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ছিল প্রায় এক লক্ষ। এখন তা কমে ৭০ থেকে ৮০-এ এসেছে। পরিস্থিতি বিচার করে যেমন লকডাউন নিয়মে বদল এসেছে তেমন দেশের প্রতিটি রাজ্যই তাঁদের কোয়ারেন্টাইন নিয়মেও কিছু কিছু পরিবর্তন এনেছে।

প্রয়োজন এবং কর্মসূত্রে এক রাজ্য থেকে আরেক রাজ্যে যাওয়া ব্যক্তিদের কোয়ারেন্টাইন এবং সেলফ আইসোলেশনের বিধি সংশোধিত হয়েছে। দেশে কোয়ারেন্টাইন নির্দেশিকা প্রথম বদল করেছে কেরল। দক্ষিণের এই রাজ্যে যেসকল ব্যক্তিরা আসবে তাঁদের ১৪ দিনের বদলে ৭ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ জারি হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ করোনা আবহেই বিহারে তিন দফার নির্বাচন শুরু ২৮ অক্টোবর থেকে

বর্তমানে কিছু রাজ্য কয়েকদিনের জন্য ব্যবসায়িক সফরে এদেশে আসা বিদেশি যাত্রীদের জন্য আইসোলেশনের নিয়ম শিথিল করেছে। কিছু কিছু যাত্রীদের জন্যও গাইডলাইন সহজতর করা হয়েছে। বিদেশি যাত্রীদের ইনস্টিটিউশনাল কোয়ারেন্টাইনে থাকার মেয়াদ কমিয়ে সাত দিন করেছে সরকার এবং পরবর্তী ৭ দিন তাঁদের হোম আইসোলেশনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

দিল্লিতে কোয়ারেন্টাইন বিধিঃ

বিদেশি যাত্রীদের জন্য: নির্দিষ্ট হোটেলগুলিতে বিনামূল্যে কোয়ারেন্টাইনের সরকারী সুবিধা দেওয়া হচ্ছে সাত দিনের জন্যে। এরপর যাত্রীদের সাত দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়ের জন্য, যাত্রীদের যাত্রা শুরু করার ৯৬ ঘন্টা আগে আরটি-পিসিআর পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট আপলোড করতে হবে। তবেই কোয়ারেন্টাইনে ছাড় পাওয়া যাবে।

অন্তর্দেশিয় যাত্রীদের জন্য: সাত দিনের হোম কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক। সাংবিধানিক পদে থাকা ব্যক্তি এবং সরকারী কর্মী-সদস্যদের পরবর্তী সাত দিনের হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে অব্যাহতি দেওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ জিএসটি ক্ষতিপূরণের অর্থ অন্যত্র খরচ করেছে কেন্দ্র- ক্যাগের রিপোর্টে চাঞ্চল্যকর তথ্য

পশ্চিমবঙ্গের কোয়ারেন্টাইন বিধিঃ

যাত্রীরা যাঁরা উপসর্গহীন তাঁদের বাড়িতেই ১৪ দিনের হোম আইসোলেশন এবং যাঁদের দেহে উপসর্গ রয়েছে তাঁদের কোয়ারেন্টাইনের প্রয়োজনীতার সিদ্ধান্ত নেবে স্বাস্থ্য আধিকারিকরা।

বিদেশি যাত্রীদের যাত্রার ৯৬ ঘন্টা আগে কোভিডের আরটি-পিসিয়ার পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্টের একটি প্রতিবেদন নিজের কাছে রাখতে হবে। বিমানবন্দর ছাড়ার আগে তা নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে আপলোড করতে হবে। ‘এয়ার সুবিধা পোর্টালে’ এই রিপোর্ট জমা করলে সেখান থেকে যাত্রীদের একটি নো অবজেকশন সার্টিফিকেট দেওয়া হবে।

অন্যান্য রাজ্যেগুলিওতেও প্রায় একই রকম বিধি। কোথাও ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন আবার কোথাও ৭ দিন করে ইনস্টিটিউশনাল এবং হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ জারি হয়েছে।

তবে সব রাজ্যেই প্রথম ৭ দিন কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক রয়েছে এখনো। এখনও ভ্যাকসিন সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট কোনো খবর নেই। তাই ‘ব্রেক দ্য চেইন’-এ ভরসা রেখেই করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চলছে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485