ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে বৃদ্ধ শিক্ষককে গণধোলাই

0
88

নিজস্ব সংবাদদাতা,কোচবিহারঃ

Sexual harassment by teacher
নিজস্ব চিত্র

ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠল এক স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে।আর ঐ ঘটনায় জনরোষ তৈরি হয় এলাকায়।অভিযুক্তকে আটক করে কার্যত গণধোলাই দেওয়া হয়।

ঘটনাটি ঘটেছে দিনহাটা ১নং ব্লকের পুটিমারি ১ নং গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত ১নং গেট প্রান্তিক বাজার এলাকায়।অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের নাম রবীন্দ্রনাথ বর্মণ।পেশায় প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক রবীন্দ্রনাথ বর্মণ ১ নং গেট এলাকায় সর্বহারা শিক্ষা নিকেতন নামে দুঃস্থ ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে বইপত্র সহ বিভিন্ন শিক্ষা সামগ্রী বিতরন করেন।

Sexual harassment by teacher
নিজস্ব চিত্র

পাশিপাশি বিনামূল্যে টিউশনিও করান তিনি।এদিন দুই ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ উঠে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে।তারপর উত্তেজিত জনতা ও নির্যাতিতার পরিবারে সদস্যরা তাকে মারধর করে বলে অভিযোগ।ওই ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে থেকে ওই শিক্ষককে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা শুরু করেছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ কাঁকসায় ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা

নির্যাতিতা এক ছাত্রীর অভিযোগ, ১৩ জুন দুই বান্ধবীকে সাথে নিয়ে সর্বহারা শিক্ষা নিকেতনে বই নিতে আসে।সেদিন বই না মেলায় শিক্ষকের কথা মত ফের এদিন সকাল ১০ টা নাগাদ আসে ওই ছাত্রীরা।বই দেওয়ার নাম করে একজন একজন করে ছাত্রীকে ঘরে ডেকে নিয়ে গিয়ে আশালিন আচরণ করা হয় বলে ওই ছাত্রী অভিযোগ করে।

শরীরে হাত দেওয়ার চেষ্টা করলে ওই ছাত্রী চিৎকার করতে শুরু করে।আর তখনই এলাকার লোকজন ছুটে এসে অভিযুক্ত শিক্ষককে মারধর করে বলে অভিযোগ।ওই ছাত্রী বলেন, “আমি ওই শিক্ষকের চরমতম শাস্তি চাই। এভাবে বইপত্র দেওয়া ও টিউশনির নাম করে যে শিক্ষক এসব করতে পারে। তাঁকে কোন ভাবেই ছেড়ে দেওয়া উচিত না।”

স্থানীয় অনেকেই জানিয়েছেন,একজন শিক্ষক দুঃস্থ ছাত্রছাত্রীদের জন্য বইপত্র দেওয়া, বিনামূল্যে টিউশন করেন বলেই স্থানীয় মানুষ তাঁকে জানেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি এখানে রয়েছেন।আজ একাদশ শ্রেনীর ছাত্রীদের সাথে এরকম আচরণের কথা জানতে পেরে এলাকার মানুষ অবাক।

যদিও অভিযুক্ত শিক্ষক রবীন্দ্রনাথ বর্মণ বলেন,“দীর্ঘদিন এখানে বসবাস করছি। এভাবেই দুঃস্থ ছাত্রছাত্রী বিনামূল্যে বইপত্র ও টিউশন দেওয়ার কাজ করে আসছি।কেউ আমাকে খারাপ বলতে পারবে না।দিনহাটার প্রত্যন্ত গ্রামে ঘুরে ঘুরে ছাত্রছাত্রীদের বইপত্র দিয়ে আসি। সকলেই আমাকে জানেন।কিন্তু আজ আমাকে ফাঁসানোর জন্য এই ছোট ছোট মেয়েদের ব্যবহার করা হয়েছে।এটা ঠিক নয়।”

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485