সীমানা পেরিয়ে স্থিতিশীল পুরসভার পাঠ দিয়ে এলেন অধ্যাপক তাপস পাল

0
95

তপন চক্রবর্তী,কালিয়াগঞ্জঃ

Tapas Pal teaching Municipal lessons
নিজস্ব চিত্র

রায়গঞ্জ পুরসভাকে ‘সবুজ ও স্থিতিশীলশহর’ এ রূপান্তরের প্রস্তাব দেওয়ার পর এবার বিশিষ্ট পরিবেশবিদ ও নগরপরিকল্পনা ট্রেনার হিসেবে বাংলাদেশের কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম  পুরসভার মেয়র মিজানুর রহমানের আমন্ত্রণে গত ২রা মার্চ স্থিতিশীল শহরের প্রশিক্ষণ দিয়ে এলেন রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুন অধ্যাপক ডঃ তাপস পাল।প্রশিক্ষণে উপস্থিত ছিলেন পুরসভা মেয়র মিজানুর রহমান,সচিব হারুনু রশীদ,উপসহকারী প্রকৌশলী আব্দুল আলিম,প্যানেল মেয়র আলহাজু কালাম, কাউন্সিলরবৃন্দ,পুরসভার সকল বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক,ব্যবসায়ী,সাংবাদিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

Tapas Pal teaching Municipal lessons
নিজস্ব চিত্র

প্রদেয় মোট ২০ দফা কর্মসূচির মধ্যে ছিল পরিবেশ রক্ষা,সবুজায়ন,প্লাস্টিকবিহীন পৌরসভা,গর্ভঘর তৈরি,মাতৃস্নেহ ঘর তৈরি,নির্দিষ্ট ধূমপান কক্ষ তৈরি,সলিড ওয়েস্টম্যানেজমেন্ট, নারী সুরক্ষা,শিশু কল্যাণপ্রকল্প, মাতৃভাষায় সাইনবোর্ড লেখা,পণবিহীন নগর গঠন প্রভৃতি।ডঃ তাপস পাল ভারত,আমেরিকা,ভুটান,জাভা থাইল্যান্ড ,দক্ষিণ কোরিয়া থেকে প্রাপ্ত টেকসই উন্নয়নের জ্ঞান পৌরবাসীর মধ্যে তুলে ধরেন  এবং ‘নব্য উন্নয়ন” বা “নিও ডেভলপমেন্ট” নামক একটি নতুন শব্দের জন্ম দিলেন।

আরও পড়ুন: মশা রুখতে পদক্ষেপ পুরসভার

তিনি বলেন বর্তমানে স্থিতিশীল উন্নয়ন কার্যকরী করতে হলে “নিও ডেভলপমেন্ট” কে অনুসরণ করতে হবে।চৌদ্দগ্রাম পুরসভা তাপসবাবুর সকল প্রস্তাব গুরুত্ব সহকারে গ্রহণ করেছেন ও পরিচালক হিসেবে তাপস বাবুকে পেতে ইচ্ছুক। ২০২১ এর মধ্যে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ এবং ২০৪১ এর মধ্যে  ‘উন্নত বাংলাদেশ’ এর তকমা দিতে চাইছেন।

এইদিকে মাথায় রেখে মেয়র মিজানুর রহমান তাপস বাবুর ‘নিও ডেভেলপমেন্ট’ ধরনাকে কাজে লাগাতে চাইছেন।ইতিমধ্যে রায়গঞ্জ পৌরসভার চেয়ারম্যান সন্দীপ বিশ্বাসের সাথে চট্টগ্রামের মেয়র মিজানুর রহমানের মধ্যে স্থিতিশীল উন্নয়নে যৌথ অভিযানের জন্য ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যোগাযোগের সেতু তৈরি করে দিয়েছেন অধ্যাপক তাপস পাল এবং ভারত বাংলাদেশ যৌথ উন্নয়ন প্রকল্প শুরু হতে চলেছে তাপস বাবুর হাত ধরে।

চৌদ্দগ্রাম সরকারি কলেজে একইসাথে ৩ মার্চ তিন ঘণ্টার একটি বিশেষ আলোচনা সভার আয়োজন করে টেকসই উন্নয়নের ব্যাপারে তিনশো শিক্ষার্থীকে সচেতন করতে এবং তাপস বাবুকেই এর মুখ্য দায়িত্বভার দেওয়া হয়।প্রসঙ্গত রাষ্ট্রপুঞ্জের ১৭টি স্থিতিশীল উন্নয়ন মূলক লক্ষ্যের মধ্যে কোথাও ভাষার উল্লেখ নেই।এ বিষয়ে তিনি বিশেষভাবে আলোকপাত করেন ও বলেন ভাষাকেও ১৮ তম লক্ষ হিসেবে নিযুক্ত করে ল্যাঙ্গুয়েজ ও সাসস্টেইনেবল ডেভেলপমেন্ট হিসেবে নতুন লক্ষ্য আনতে হবে।

তার এই নতুন বার্তা ঢাকা শহরের ক্ষিতিনাট্য ভবনে গত ২১ শে মার্চ চেতনা পরিষদের (নিউইয়র্ক) উদ্যোগে ‘বাংলায় লিখুন,বাংলায় বলুন’ অনুষ্ঠানে উপস্থিত বিশিষ্ট ভাষা সৈনিক কামাল লোহানি,ভাষা সৈনিক অধ্যাপক টিপু,ভাষা সৈনিক ফুলে হুসেন,ভাষা সৈনিক সরিফা খাতুনদের মতো কিংবদন্তি মানুষদের সাথে একমঞ্চে বক্তব্য রাখলেন তাপস বাবু।

তিনি বলেন,মাতৃভাষা রক্ষার মধ্য দিয়ে জাতি তার নিজস্ব পরিচিতি ও সংস্কৃতি রক্ষা করতে পারে এবং রায়গঞ্জ শহরের ভূমিপুত্র হওয়ায় তিনি সমগ্র বিশ্বে ভাষা নিয়ে রায়গঞ্জবাসীর ভাবনা এবং রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাচিন্তাকে ছড়িয়ে দেওয়াই তার কাজ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here