কীটনাশক খেয়ে আত্মঘাতী কৃষক,উচ্ছৃঙ্খল মাতাল মত স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধানের

0
66

সিমা পুরকাইত,দক্ষিন ২৪ পরগনাঃ

The farmer suicide for eating poison
চন্দন বারিক।নিজস্ব চিত্র

বৃষ্টিতে জমির ফসল নষ্ট হওয়ায় বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করল এক চাষি।ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার পাথরপ্রতিমা ব্লকের রামগঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের দক্ষিণ মহেন্দ্রপুর গ্রামে।মৃত চন্দন বারিক( ৪০)।স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে,ঋণ করে তিন বিঘা কৃষি জমিতে চাষ করেছিল,গত কয়েকদিন আগের বৃষ্টিতে এবং ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যায় তাই নিয়ে মনমরা ছিল চন্দন।

The farmer suicide for eating poison
গোলাম নবী মোল্লা,মৃতের প্রতিবেশী।নিজস্ব চিত্র
The farmer suicide for eating poison
বুদ্ধদেব পাল,স্থানীয় বাসিন্দা।নিজস্ব চিত্র

গতকাল ক্ষতিগ্রস্ত জমির কাছে বিষ খেয়ে অচৈতন্য অবস্থায় পড়েছিল।স্থানীয় লোকজন দেখতে পেয়ে বাড়িতে খবর দিলে বাড়ির লোকজন চন্দনকে নিয়ে গদামথুরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করে।কিন্তু সেখানে অবস্থা খারাপ হওয়ায় চিকিৎসক ডায়মন্ড হারবার হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন।

 

The farmer suicide for eating poison
সমীর কুমার জানা,স্থানীয় পঞ্চায়েত উপপ্রধান।নিজস্ব চিত্র

আরও পড়ুন: দেনার দায়ে আত্মঘাতী শিক্ষক

The farmer suicide for eating poison
নারায়ণ বারিক,মৃতের পুত্র

যদিও স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান গৌরহরি বাগ নিউজফ্রন্ট প্রতিনিধিকে জানান যে,সে মাতাল এবং উচ্ছৃঙ্খল ছিল।প্রায় মদ খেয়ে বাড়িতে অশান্তি করত তার জেরেই আত্মহত্যা।অপরদিকে উপপ্রধান সমীর কুমার জানা জানান যে,চন্দন মানসিক বিকারগ্রস্ত ছিল।

The farmer suicide for eating poison
মৃতের স্ত্রী।নিজস্ব চিত্র
The farmer suicide for eating poison
গৌরহরি বাগ,স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান।নিজস্ব চিত্র

কিন্তু মৃতের পুত্র নারায়ন বারিক,প্রতিবেশী গোলাম নবী মোল্লা এবং স্থানীয় বাসিন্দা বুদ্ধদেব পালদের অভিমত উৎপন্ন ফসল নষ্ট হয়ে যাওয়ার কারনেই চন্দনের আত্মহত্যা।মৃত চন্দন বারিকের মৃতদেহ ময়নাতদন্ত পাঠানো হয়েছে কাকদ্বীপ হাসপাতালে।মৃত চন্দনের এক ছেলে এবং একাদশ শ্রেণিতে পাঠরতা এক কন্যা বর্তমান।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here