খবরের জেরে ব্যক্তিগত উদ্যোগে সরল পচে যাওয়া মালা

0
17

নিজস্ব সংবাদদাতা, পশ্চিম মেদিনীপুরঃ

অবশেষে খবরের জেরে মূর্তির গলা থেকে সরানো হল পুরনো শুকনো পচা গলা ফুলের মালা। তবে যারা পরিয়ে ছিলেন তারা নয়, ব্যক্তিগত উদ্যোগে এই কাজ করে দেখালেন পশ্চিম মেদিনীপুরের খাকুড়দার এক বাসিন্দা রতন হুই।

উদ্যোগ।নিজস্ব চিত্র

প্রসঙ্গত গত ১৫ আগস্ট খাকুড়দার বিশ্রামাগারের সামনে থাকা হেমচন্দ্র কানুনগোর আবক্ষ মূর্তিটিতে মাল্যদান করেছিলে বহু স্কুল, বিভিন্ন সংগঠন সংগঠন এবং রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ। তারপর বহুদিন যাবৎ সেই মালা গুলি শোভা পাচ্ছিল মূর্তির গলায় পুরনো শুকনো পচাগলা অবস্থায়।

নিজস্ব চিত্র

তা দেখেও না দেখার ভান করে সবাই চলে গিয়েছেন। কেউবা সমালোচনা করে বলেছেন কাজটা ঠিক হয়নি। তবে কাজটিকে বাস্তব রূপ দিতে কেউ এগিয়ে না আসলেও, অবশেষে নিজ স-ইচ্ছায় একক প্রচেষ্টায় এই কাজ করে দেখালেন খাকুড়দার বাসিন্দা রতন বাবু ।

রতন হুই,উদ্যোগী ব্যক্তি।নিজস্ব চিত্র

তার বক্তব্য,”আমরা বহুদিন ধরে খাকুড়দার স্ট্যান্ডে -স্ট্যান্ড ম্যানেজারের কাজ করছি ।গত ১৫ আগস্ট থেকে এই মূর্তিটিতে অনেক সংগঠন এসে মাল্যদান করে গেছে।

আরও পড়ুনঃ বীর বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর আত্মোৎসর্গ দিবস পালন

তবে পুরনো বাসি মালা গুলি বা পতাকা গুলিকে সরিয়ে দেওয়ার কাজ কেউ করেনি ।দেখতে খারাপ লাগছে তাই আজকে বাধ্য হয়ে নিজে সেগুলিকে সরিয়ে দিলাম।মূর্তিকে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নতুন একটি মালা পরিয়েছি।
আমরা নিজেরা সচেতন হলে এই টুকুই করা যায় এমন কিছু কষ্টের বিষয় নয়।”

তবে খবরের জেরেই হোক বা ব্যক্তিগত উদ্যোগেই হোক রতন বাবুর এই প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসীরা।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485