ড্যামেজ কন্ট্রোলে বিক্ষুব্ধদের নিয়ন্ত্রণে দলের বক্তব্য শুনতে, জানাতে রোস্টার তৃণমূলের

0
51

শুভম বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতাঃ

একটানা ১০ বছর ধরে ক্ষমতায় রয়েছে শাসকদল তৃণমূল। এই সুদীর্ঘ সময় দলের অভ্যন্তরে যে কোন দল বাসা বাঁধেনি, তা হলফ করে বলতে পারবেন না কোনও তৃণমূল নেতারাই। আর সেই সমস্ত ছিদ্র দিয়েই ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল ধরাশায়ী করার লক্ষ্যে ঘুঁটি সাজাচ্ছে বিরোধী দল বিজেপি।

tmc flag | newsfront.co
প্রতীকী চিত্র

ইতিমধ্যেই ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলকে জোরদার ধাক্কা দিয়েছে বিজেপি। কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনের আগে যাতে শক্তি ক্ষয় না হয়, তার জন্য এবার দলের বিভিন্ন নেতৃত্বের বক্তব্য শোনার জন্য দলীয় রোস্টার তৈরি করল তৃণমূল।

সম্প্রতি দলে বিদ্রোহীদের সংখ্যা বাড়ছে। শুভেন্দু অধিকারীর অবস্থান নিয়ে রীতিমতো রক্ত চাপ বাড়ছে তৃণমূলের অন্দরে। হুগলির হরিপালের বিধায়ক বেচারাম মান্না স্পিকারের কাছে পদত্যাগপত্র পাঠানোর পরও তাকে বুঝিয়ে সুজিয়ে কোনওমতে ফেরানো গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে বিধানসভা নির্বাচনের আগে দলছুট আটকাতে বিভিন্ন বিষয়ে দলের বক্তব্য জানানোর জন্য দলের নেতাদের জন্য নতুন ‘রোস্টার’ তৈরি করেছে তৃণমূল।

আরও পড়ুনঃ তৃণমূল বনাম তৃণমূলের লড়াইয়ে উত্তপ্ত দেওচড়াই

সেখানে বলা হয়েছে, বেলা ১২টা থেকে বিকাল ৪টে পর্যন্ত তৃণমূল ভবনের মিডিয়া সেন্টারে ওই নেতারা বিভিন্ন রাজনৈতিক বিষয়ে সংবাদমাধ্যমকে তাদের বক্তব্য জানাবেন। এমনকি প্রয়োজন হলে তারা দলীয় নেতৃত্বকে তাদের কোনও ক্ষোভের বিষয়ে জানাতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ ৬৭ তম নিখিল ভারত সমবায় সপ্তাহ উদযাপন অনুষ্ঠান মোহনপুরে

বাকি সময় তারা চাইলে বাড়ি বা অন্যত্র থেকে বাংলা, ইংরেজি বা হিন্দিতে তাদের বক্তব্য জানাতে পারবেন। দলীয় নেতৃত্বের যাতে এটা মনে না হয়, তাদের কথা শোনার বা বলার কোন জায়গা নেই, তার জন্যই এই নতুন পদ্ধতি করা হয়েছে।

তৃণমূলের একাংশের মতে, সময় বেঁধে দায়িত্ব ভাগ করে দেওয়ার মধ্য দিয়ে দলে শৃঙ্খলা পেশাদারিত্বের বার্তা আরও বেশি করে দিতে চাইছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সংবাদমাধ্যমের কাছে কে মুখ খুলবেন, তা নির্দিষ্ট করে নিয়ে মুখপাত্রদের নাম জানিয়ে দিয়েছিল তৃণমূল। এবার সেই নামগুলির মধ্যে কয়েকজনের নাম যুক্ত করে তাঁদের জন্য এই সাপ্তাহিক ‘রোস্টার’ তৈরি করে দেওয়া হল।

আরও পড়ুনঃ অধীর চৌধুরীকে ভাইফোঁটা দিলেন দিদি, দেখতে চান তাকে মুখ্যমন্ত্রীর আসনে

‘রোস্টার ডিউটি’ থাকবে সপ্তাহের ৬দিন। সোমবার এবং শুক্রবার সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলবেন রাজ্যসভা সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায়। বৃহস্পতিবার এবং শনিবার কথা বলবেন বিশ্বজিৎ দেব। মঙ্গলবার মন্ত্রী শশী পাঁজা, বুধবার ওমপ্রকাশ মিশ্র, বৃহস্পতিবার নির্বেদ রায় এবং শনিবারের জন্য নাদিমুল হকের নাম রয়েছে। বৃহস্পতিবার এবং শনিবারের জন্য দু’‌জন করে নেতার নাম রয়েছে।

বাকি চারদিন একজন করেই ওই দায়িত্ব সামলাবেন। তবে সপ্তাহের ‘যে কোনও একটি দিন’ সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলবেন রাজ্যসভার সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদী এবং রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু। এতে দলের ভিতর গুমোট চাপা আবহাওয়া অনেকটাই হালকা হবে এবং সকলে খোলা মনে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন বলে আশা তৃণমূলের।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here