বাজপেয়ীর মৃত্যুতে একটি যুগের অবসান

0
59

ওয়েবডেস্কঃ

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী আজ দিল্লির এইমসে (AIIMS)  বিকাল ৫:০৫ নাগাদ  শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৩ বছর।

গত জুনে দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিক‍্যাল সায়েন্সে(AIIMS) কিডনি সমস্যা, মুত্রথলির সংক্রমণ এবং বুকে ব্যথা নিয়ে ভর্তি হন তিনি। গত ৩৬ ঘণ্টায় তাঁর শারীরিক অবস্থার মারাত্মক অবনতি হয়। শেষপর্যন্ত তাঁকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। তবে সর্বাত্মক চেষ্টা সত্ত্বেও আজ বিকালে তাঁর মৃত্যু হয়।

মিশাইল ম‍্যানের সাথে

১৯২৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর গোয়ালিয়রে তাঁর জন্ম;
পরে ১৯৩৯ সালে আর এস এসে যোগদান; ১৯৫১ সালে আরএসএসের তৎকালীন রাজনৈক সংগঠন ভারতীয় জনসংঘের দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ পদে উন্নীত হন তিনি।  ১৯৬৮ সালে আবার এই দলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে ভারতে জরুরি অবস্থা চলাকালীন দলের অন্য নেতাদের সঙ্গে কারাবন্দী হয়েছিলেন বাজপেয়ী নিজেও। ১৯৭৭ সালে নাম পরিবর্তন করে ‘জনতা পার্টি’ নামে নতুন এক জোট তৈরি করে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে মাঠে নামতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি। নির্বাচনে জিতে মোরারজী দেশাইয়ের সরকারে সে সময় পররাষ্ট্র মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছিলেন বাজপেয়ী।

Express photo by R.K. Sharma

জনতা পার্টির পতনের পর দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সঙ্গী এল.কে.আদবানির সঙ্গে ১৯৮০ সালে তিনি ‘ভারতীয় জনতা পার্টি’- বিজেপি গঠন করেন ।১৯৯৬, ১৯৯৮ ও ১৯৯৯ সালে তিন বার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি – প্রথম দফায় ১৩ দিন, দ্বিতীয় দফায় ১৩ মাস আর তৃতীয় দফায় পূর্ণ সময়ের জন্য প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ।

(HT File Photo)

প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষা তাঁর অন‍্যতম সাফল্য।তিনি ২০০২ এর দাঙ্গার পরে গুজরাটে গিয়ে ওনার নিজের দলের মুখ্যমন্ত্রীকেই রাজধর্ম পালন করতে বলেছিলেন। বর্তমান শাসকদের তুলনায় তিনি একটু ভিন্ন প্রকৃতির মানুষ ছিলেন।প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখার অংশ হিসেবে পাকিস্তানের সঙ্গে শান্তি প্রক্রিয়া তাঁকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বিশ্ব রাজনীতিতে  এক অন‍্য  উচ্চতায় পৌঁছে দেয়।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485