এবার কি সত্যি-সত্যিই বড় বিপদের সম্মুখীন রাজ‍্যের শিক্ষকদের একাংশ?

0
8756

কলকাতা: –  ০৯/১২/২০১৫- ‘মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন’-কে মহামান্য কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেন্চ শুধুমাত্র অবৈধই ঘোষণা করেনি, সঙ্গে এটাও বলে দেয় যে ২০০৮ সাল থেকে শুরু করে কমিশনের মাধ্যমে যত শিক্ষক-শিক্ষাকর্মী নিয়োগ হয়েছে তারাও অবৈধ-তাদের চাকুরির বৈধতা নিতে হবে কমিটির কাছ থেকে। এটা হয়তো ছিল প্রথম ধাপ। কিন্তু বিষয়টিকে কেউ তেমন গুরুত্বই দেয়নি তখন। তার পর গঙ্গা দিয়ে অনেক জল গড়িয়ে গেছে। হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে মামলাও হয়েছে।

এরপর পশ্চিমবঙ্গ স্কুল সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে পরীক্ষায় এই শিক্ষকদেরই একাংশ উত্তীর্ণ হন ২০১৬ সালে। কিন্তু সেখানেও তাদের চাকরির কন্টিনিউয়েশন বাদ দেওয়া হয়।

এবার,২০১৭সালে, যখন স্কুল সার্ভিস কমিশন- প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি করে তাতেও মাদ্রাসার শিক্ষক দের বসার কোন সুযোগ ছিলোনা।সোজা কথায় বললে অভিজ্ঞতা থাকা সত্ত্বেও মাদ্রাসার শিক্ষক দের স্কুল সার্ভিস কমিশন কোন মান্যতা দিল না ।এতে মাদ্রাসার শিক্ষক দের কিছুটা টনক নড়ে।শাসক-বিপক্ষ সব দলের মাদ্রাসা শিক্ষক সংগঠনগুলিই এস.এস.সি.-এর চেয়ারম্যানের সঙ্গে দেখা করে ও এই বিষয়ে ডেপুটেশন দেয়। কিন্তু মৌখিক আশ্বাস দিলেও কার্য্যক্ষেত্রে সংশোধিত কোন বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়নি এস.এস.সি.-এর পক্ষ থেকে। এই নিয়ে হাইকোর্টে মামলাও হয়। গত ৭/৭/১৭এই মামলার শুনানি ছিল। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম থেকে জানা যাচ্ছে সেখানেও সুষ্ঠ সমাধান হয়নি। শুধুমাত্র মামলায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষকদের একটি অংশই ফর্ম পূরণ করতে পারবেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ২০০৮সালের পূর্বে এস.এস.সি. -এর মাধ্যমেই মাদ্রাসায় শিক্ষক নিয়োগ হতো। যে এস.এস.সি.-এর মাধ্যমে শিক্ষকরা মাদ্রাসায় নিয়োগ পেয়েছিলেন সেই এস.এস.সি.-এর কাছেই তাদের চাকরির কোন মান্যতা রইল না।

কমিশন বৈধ না অবৈধ?- সেটা সুপ্রিম কোর্টে বিচারাধীন। কিন্তু এই শিক্ষক দের কি হবে? বাসে ট্রেনে সর্বত্র ই গুঞ্জন- তবে কি ত্রিপুরার শিক্ষকদের মতোই পরিণতি হতে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের মাদ্রাসা শিক্ষকদের? এই বিষয়ে প্রাক্তন বিচারপতি অশোক গঙ্গোপাধ্যায় বলেন-‘হাইকোর্টের রায়ে তো এই শিক্ষকরা অবৈধই ।এখন সুপ্রিম কোর্ট কি বলে দেখা যাক?’

পর পর ঘটনাক্রম এমন যে , বিভিন্ন মহলে গুন্জন ও অশঙ্কার সঙ্গেসঙ্গে এ প্রশ্নও উঠতে শুরু করছে যে এই শিক্ষকদের চাকরিতো প্রশ্নের মুখে আছেই, এরপর এরা পরবর্তী বেতন কমিশনের সুবিধা পাবেন তো?

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here