ব্যক্তিগত উদ্যোগে ৩৭০ ধারা বাতিল করেন নরেন্দ্র মোদী, বললেন অমিত শাহ

0
34

মোহনা বিশ্বাস, ওয়েব ডেস্কঃ

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজের ব্যক্তিগত উদ্যোগেই জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা আইন বাতিল করেন। রবিবার জম্মুতে একটি জনসভায় এমনটাই দাবি করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। জনসঙ্ঘের প্রতিষ্ঠাতা শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের স্বপ্নপূরণ করতেই জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা আইন বাতিল করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, এমনটাই জানিয়েছেন অমিত শাহ।

Amit Shah
সৌজন্যে : ইন্ডিয়া টুডে

জম্মু-কাশ্মীর ৩৭০ ধারা বাতিল করলে উপত্যকায় জঙ্গি সমস্যা কমবে। এই দাবি নিয়েই ৩৭০ ধারা বাতিল করেছিল মোদী সরকার। কিন্তু পরবর্তীকালে দেখা গিয়েছে, যে আইন বাতিল হলেও কমেনি জঙ্গি সমস্যা। বরং যতদিন যাচ্ছে উপত্যকায় জঙ্গি সমস্যা বেড়েই চলেছে। উপত্যকা অঞ্চলে সম্প্রতি জঙ্গি হামলার বেশ কিছু চিত্র উঠে এসেছে। তবে এ বিষয়ে এদিন কোনো মন্তব্য করেননি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

৫ অগাস্ট ২০১৯। মোদী সরকার ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করেছিলেন। তারপর এই প্রথম জম্মু-কাশ্মীর সফরে গিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। কাশ্মীর সফরে গিয়ে বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার নিয়ে তাঁকে কিছুই বলতে শোনা যায়নি। তবে রবিবার জম্মুতে একটি জনসভায় এই বিশেষ মর্যাদা বাতিলের প্রধান কারণ ও যৌক্তিকতা নিয়ে কথা বলেছেন অমিত শাহ।

এদিন তিনি বলেন, ‘‘৩৭০ ধারা আসলে একটি বৈষম্যমূলক আইন ছিল। বহুবার ওই আইন প্রত্যাহারের দাবি উঠলেও মোদী সরকারের আমলে প্রধানমন্ত্রী তাঁর ব্যক্তিগত উদ্যোগে ওই আইন বাতিল করেন। ওই আইন প্রত্যাহারের ফলে জম্মু-কাশ্মীরের উন্নয়নের পথ খুলে গিয়েছে। দীর্ঘ সময় ধরে স্থানীয়রা যে বঞ্চনার শিকার হতেন, সেই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেয়েছেন তাঁরা।’’

আরও পড়ুনঃ জি-২০ বৈঠকে যোগ দিতে আগামী ২৯ অক্টোবর রোম সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

এদিন জম্মুতে আয়োজিত ওই জনসভায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ আরও বলেন যে, জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা আইন প্রত্যাহার করায় শিখ, মহাজন, ক্ষত্রীয় শ্রেণির মানুষেরা কাশ্মীর উপত্যকায় জমি কেনার অধিকার পেয়েছেন। শুধু তাই নয়, পশ্চিম পাকিস্তান থেকে যে সকল শরণার্থী, গোর্খা, বাল্মিকীরা জম্মু-কাশ্মীরে এসেছেন তাঁরাও নাগরিকত্ব-সহ অন্যান্য একাধিক অধিকার পেয়েছেন ওই আইন বাতিলের ফলে। গুর্জ্জর ও পণ্ডিতরা তাঁদের সংরক্ষণের অধিকার পুনরায় ফিরে পেয়েছেন শুধুমাত্র ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের কারণে।

আরও পড়ুনঃ আরিয়ান কান্ডে ২৫ কোটি টাকার ডিলের প্রস্তাব NCB-র, চাঞ্চল্যকর অভিযোগ! ওয়াংখেড়ের পদত্যাগ দাবি মেহেতার

এখানেই শেষ নয়, ওই আইন প্রত্যাহারের ফলে দীর্ঘ সময়ের পর উপত্যকায় নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। জনসঙ্ঘের প্রতিষ্ঠাতা শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, কাশ্মীরকে দেশের মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে জোড়ার যে স্বপ্ন দেখেছিলেন, ওই আইন প্রত্যাহারের মধ্যে দিয়ে তাঁর সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে বলেও জানান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here