সুদীপ পাল বর্ধমান

authorities affected by Bali Mafia
অভিযোগপত্র।নিজস্ব চিত্র

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিভিন্ন জেলা সফরে গিয়ে বালি চুরির বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন। জেলার সংশ্লিষ্ট আধিকারিকদের বলছেন বিষয়টিতে নজর রাখতে। কিন্তু সেই নজরদারি করতে গিয়েই বালি মাফিয়াদের হাতে আক্রান্ত হলেন এক আধিকারিক। রবীন্দ্রনাথ দেওয়ার নামে আধিকারিক নিগৃহীত হলেন। মঙ্গলকোট বিএলআরও রূপবিলাস মন্ডল আধিকারিককে নজরদারির জন্য নির্দেশ দিয়েছিলেন। অজয় নদের উপর পালিগ্রামের মাঝিখাড়া ঘাটে তিনি পৌঁছাতেই ব্যাপকভাবে কটুক্তি শুরু হয়। তারপরেই শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হয়। মঙ্গলকোট থানায় পুরো বিষয়টি জানিয়ে কেস রুজু করার জন্য আবেদন করা হয়। জানা যায়, অজয় নদের বিভিন্ন ঘাট থেকে বালি চুরির নিয়মিত ঘটনা। তার মধ্যে কোগ্রামের ঘাট বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। বালি চুরি হবার ফলে একদিকে সরকার যেরকম রাজস্ব আদায় থেকে বঞ্চিত হয় অন্যদিকে বালি লুটকারীদের ব্যাপক রমরমা বৃদ্ধি পাচ্ছে। সেই বিষয়টিতেই রাশ নিতে চাইছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এখন আধিকারিকই যদি নিগৃহীত হন তাহলে তার দায় কে নেবে এ প্রশ্ন উঠে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: তুলার গোডাউনে আগুন,দমকলের তৎপরতায় বড় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here