শিশুদের ক্ষেত্রে রেমডেসিভির ব্যবহারে না, গাইডলাইন জারি কেন্দ্রের

0
20

নিজস্ব প্রতিবেদন, নিউজ ফ্রন্টঃ

দেশজুড়ে প্রভাব ফেলেছে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ, এরইমধ্যে চিকিৎসকেরা সতর্ক করেছেন কোভিডের তৃতীয় ঢেউ নিয়ে। প্রথম ঢেউয়ে সবথেকে বেশি প্রভাব পড়েছিল বয়স্কদের ওপর, আর দ্বিতীয় ঢেউ কাবু করেছে তরুণদের। চিকিৎসকদের মতে, কোভিডের তৃতীয় ঢেউয়ে সবথেকে বেশি আক্রান্ত হতে চলেছে শিশুরা অর্থাৎ ১৮ বছরের কমবয়সীরা। তাই এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে কেন্দ্র সরকার। ১৮ বছরের কমবয়সী শিশুদের জন্য কোভিড -১৯ গাইডলাইন প্রকাশ করেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

corona third wave | newsfront.co
চিত্র সৌজন্যেঃ ইউনিসেফ

স্বাস্থ্যমন্ত্রক দ্বারা জারি নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, শিশুদের ক্ষেত্রে রেমডেসিভির ব্যবহার করা যাবে না এখনই। কারণ ১৮ বছরের কমবয়সীদের ওপর এই ইনজেকশন কি প্রভাব ফেলবে তার কোনো পরীক্ষা হয়নি। তবে মৃদু উপসর্গের ক্ষেত্রে স্টেরয়েডের ব্যবহার না করাই ভালো। একমাত্র গুরুতর অবস্থায় সঠিক পরিমাণে স্টেরয়েডজাতীয় ওষুধ নেওয়া যেতে পারে।

আরও পড়ুনঃ ২০২১-২২ অর্থবর্ষে ভারতের অর্থনৈতিক বৃদ্ধি ৮.৩ শতাংশ হতে পারে, মত বিশ্বব্যাঙ্কের

এছাড়া নির্দেশিকায় আরও বলা হয়েছে, ১২ বছরের অধিক বয়সীদের বাবা-মা অথবা অভিভাবকদের তত্ত্বাবধানে ৬ মিনিটের হাঁটার পরীক্ষা করা যেতে পারে। কি এই ৬ মিনিট হাঁটার পরীক্ষা? চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, বাড়ির মধ্যেই ৬ মিনিট ধরে হাঁটতে হবে, হাঁটার পর আঙ্গুলে অক্সিমিটার লাগিয়ে অক্সিজেন স্যাচুরেশন মাপুন।

আরও পড়ুনঃ কোভ্যাক্সিন কোভিশিল্ড স্পুটনিকের দাম বাঁধল কেন্দ্র, জেনে নিন কোন টিকার কত দাম!

যদি অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৯৪- র নীচে নেমে যায় বা শ্বাসকষ্ট হয় অথবা এক ধাক্কায় ৩-৫ শতাংশ নেমে যায়। এক্ষেত্রে সময় নষ্ট না করে তৎক্ষণাৎ হাসপাতালে ভর্তি করে অক্সিজেন সাপোর্ট দিতে হবে। এসবই করতে হবে কোনো চিকিৎসক বা অভিভাবকের তত্ত্বাবধানে। এছাড়া নির্দেশিকায় শিশুদের সিটি স্ক্যানের ওপরও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584