দিল্লি পুলিশের সহিংসতার তীব্র নিন্দা, জামিয়া-আলিগড়ের পাশে আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলি

0
33

নিউজফ্রন্ট, ওয়েবডেস্কঃ

রবিবার আমেরিকা জুড়ে বেশ কয়েকটি বিশিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এবং প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ায় ‘শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে নৃশংস পুলিশি সহিংসতা চালানো’-র তীব্র নিন্দা জানিয়ে একটি বিবৃতি জারি করেছে। তারা বলেছে যে এই হামলা “ভারতের সংবিধান এবং আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের অধীনে মানবাধিকারের চূড়ান্ত লঙ্ঘন”।

Intense condemnation about delhi police | newsfront.co
পুলিশি সহিংসতার প্রতিবাদে জামিয়া-মিলিয়ায় জমায়েত। চিত্র সৌজন্যঃ রয়টার্স

হার্ভার্ড, কলম্বিয়া, ইয়েল, নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়, স্ট্যানফোর্ড, জনস হপকিনস, কর্নেল, এমআইটি এবং আরও অনেক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষার্থীরা এবং এই চিঠিতে স্বাক্ষর করেছেন, ভারতের শিক্ষার্থীদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে যারা সাম্প্রতিকভাবে অসাংবিধানিক ও বৈষম্যমূলকভাবে সিএএ পাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছেন।

আরও পড়ুনঃ সিএএ বিরোধী মশাল মিছিল তৃণমূলের দিনহাটায়

তারা বলেছে, “প্রতিটি বিবরণে দেখা যায় যে জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় এবং আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশ এবং আধা-সামরিক বাহিনী সহিংসতার সাথে শিক্ষার্থী, প্রতিবাদকারীদের বিরুদ্ধে বেআইনী ও বেপরোয়া কৌশল অবলম্বন করেছে”। এই কাজ “বেসামরিক লোকদের বিরুদ্ধে নির্মম বলের ব্যবহার” এবং এর নিন্দা জানিয়ে তারা বলেছে “যে কোনও গণতান্ত্রিক সমাজের বিবেকেই এই ঘটনা আঘাত করবে।”

পাশাপাশি স্বাক্ষরকারীরা পুলিশি গুলিতে অসমের পাঁচজন বিক্ষোভকারী হত্যার নিন্দাও জানিয়েছে। এমনকি ত্রিপুরা-অসম-সহ রাজ্যগুলিতে ইন্টারনেট ও ফোন পরিষেবা বন্ধের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ সিএএ-বিরোধী তৃণমূলের মিছিল ঘিরে উত্তেজনা কানকিতে

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দিল্লি পুলিশ, উত্তরপ্রদেশ পুলিশ, এবং কেন্দ্রীয় রিজার্ভ পুলিশ বাহিনী কর্তৃক ক্ষমতার অপব্যবহার চরম নিন্দনীয়। বিক্ষোভকারীদের পুলিশ ও প্রশাসনের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ ভাবে প্রতিবাদ চালিয়ে যাওয়াও তাদের মৌলিক অধিকারের মধ্যে পড়ে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485