এ কোন পুলিশ! জলঙ্গী থেকে ময়ূরেশ্বর প্রশ্ন একটাই

0
116

নিজস্ব সংবাদদাতা, মুর্শিদাবাদ, বীরভূমঃ

jalangi police officers | newsfront.co
প্রতিবন্ধী মানুষদের পাশে ওসি উৎপল কুমার দাস। নিজস্ব চিত্র

সীমান্ত পারের জলঙ্গি থানার যেখানের বেশিরভাগ বাসিন্দারই কৃষিকাজে হয় অন্ন সংস্থান, গোদের উপর বিষ ফোঁড়ার মতো রয়েছে পদ্মার ভাঙন।

দিন আনতে পান্তা ফুরানো এই মানুষগুলি টানা লকডাউন পরিস্থিতে নাজেহাল। দু’ মুঠো অন্ন যেন এখানে মহার্ঘ্য।

jalangi police officers | newsfront.co
পুলিশের উদ্যোগে জন্মদিন উদযাপন। নিজস্ব চিত্র

এই রকম পিছিয়ে পড়া অর্থনৈতিক থানার অফিসার উৎপল কুমার দাস, একদিকে কঠোর হাতে আইন রক্ষার পাশাপাশি থানা এলাকার অসহায় মানুষগুলির আশ্রয় হয়ে উঠেছেন তিনি। লকডাউনের শুরু থেকে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী থেকে ভবঘুরের পাশে দাঁড়িয়েছেন, কখনও ছুটে গেছেন সদ্য প্রসূতির বাড়ি নবজাতকের খাবার নিয়ে।

আইনের রক্ষক হয়ে যেমন কঠোর হাতে লক ডাউনকে সফল করতে পথে নেমেছেন অপরদিকে দেখেছেন বিশেষ এই পরিস্থিতিতে কোন শ্রেণীর মানুষ কি অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছেন। সাধ্য মতো দাঁড়িয়েছেন পাশে।

আরও পড়ুনঃ অবলাদের মুখে অন্ন দিতে উদ্যোগ রায়গঞ্জের পড়ুয়ার

আজ তাঁরই উদ্যোগে জলঙ্গী থানা এলাকার প্রতিবন্ধী অসহায় মানুষগুলি পেল খাদ্যসামগ্রী। সাদিখাঁড়দিয়ার, খয়রামারি এলাকায় প্রায় চল্লিশ জন প্রতিবন্ধীর হাতে খাদ্যসামগ্রীর সঙ্গে মাস্ক এবং সাবান তুলে দেন তিনি। প্রশাসনের কর্তাদের এতো আপন করে পেয়ে আহ্লাদিত সাহায্যপ্রাপ্ত অসহায় মানুষগুলিও।

অপরদিকে বীরভূম জেলা পুলিশের ময়ূরেশ্বর থানার উদ্যোগে এবার এক আদিবাসী শিশুর জন্মদিন পালন করা হলো।

লক্ষ্মীস্বর সোরেন নামে এক আদিবাসী শিশুর আজ জন্মদিন ছিল কিন্তু লকডাউন এর জেরে সেই অনুষ্ঠানের কোনোরকম আয়োজন করতে পারেনি তার পরিবার সেই কথা ময়ূরেশ্বর থানা জানা মাত্র শিশুটির জন্মদিনের আয়োজন করে তারা।

শুধু আয়োজন নয় লক ডাউনের আইন মেনে এই জন্মদিনের অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন ময়ূরেশ্বর থানার আধিকারিক বৃন্দ এবং ছোট্ট শিশু লক্ষ্মীস্বর সোরেন। কেক, পায়েস, মিষ্টি সবকিছুই রাখা ছিল জন্মদিনের অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিল আদিবাসী পাড়ার কচিকাঁচারাও। থানার পুলিশের এই উদ্যোগে আনন্দিত শিশু এবং তার পরিবার।

মহামারি পরিস্থিতিতে বদলে যাচ্ছে অনেক কিছুই। একদিকে মৃত্যু ভয় কাজ হারানোর ভয় নিরন্ন থাকার ভয়। এতো ভয়ের মাঝে যাদের থেকে শত শত যোজন দূরে থাকতে চেয়েছে আমজনতা সেই পুলিশ যেন আজ আপনজন।

কোথাও পুলিশ গান করে বিষন্ন মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে উদ্যোগ নিচ্ছে কোথাও অসুস্থ মানুষের বাড়িতে পৌঁছে দিচ্ছে জীবন দায়ী ওষুধ। করোনা অনেক ভয়ের সৃষ্টি করলেও পুলিশ সম্পর্কে মানুষের প্রচলিত ভ্রান্ত ধারণা তছনছ করে দিয়েছে। সর্বত্র একটাই প্রশ্ন এ কোন পুলিশ!

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here