বাংলার মানুষের কথা ভেবে মুম্বাইয়ে ‘বঙ্গভবন’ তৈরির ইচ্ছা প্রকাশ বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর

0
72

শরীয়তুল্লাহ সোহন, ওয়েব ডেস্কঃ

দেশের মধ্যে দিল্লিতে যথারীতি বঙ্গভবন আছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকার দ্বারা সেই বাড়ি নিয়ন্ত্রিত হয়। বিভিন্ন প্রয়োজনে জরুরি অবস্থায় এরাজ্যের বাসিন্দারা সেখানে গিয়ে অবস্থান করেন। সেই ধাঁচেই এবার মুম্বাইয়ে বঙ্গভবন করার জন্যে ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Mamata Banerjee
সৌজন্যেঃ এনডিটিভি

মুম্বাইয়ের টাটা মেমোরিয়াল ক্যান্সার হাসপাতালে বাংলা থেকে অনেকে চিকিৎসার জন্য যায়। তাদের থাকার বন্দোবস্ত করার জন্য বা আরও জরুরি পরিষেবা পেতে মুম্বাই যারা যায়, তাদের থাকার বন্দোবস্ত করার জন্য এমন উদ্যোগ নিতে চেয়েছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী । মুম্বাই সরকারের কাছ থেকে জমি মিললেই পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তহবিল থেকে গড়ে উঠবে এই ভবন।

সাম্প্রতিক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুম্বাই সফরে গিয়েছিলেন। সেখানে তিনি শিল্পপতিদের সাথে এক বিশেষ বৈঠক করেন। এছাড়াও দেশজুড়ে বিজেপি বিরোধী জোট গড়ে তোলার জন্যে বিভিন্ন নেতার সাথে সাক্ষাৎ করেছেন। সাক্ষাৎ করার কথা ছিল, শিবসেনার মুখপাত্র ও মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের সাথে। কিন্তু শারীরিক অসুস্থতার জন্যে সেটা সম্ভব হয়ে উঠেনি। তবে শিবসেনার মুখপাত্র উদ্ধব ঠাকরের বদলে তাঁর ছেলে আদিত্য ঠাকরে, যিনি মহারাষ্ট্রের পরিবেশ মন্ত্রী তাঁর সাথে সাক্ষাৎ করেন। শিবসেনার প্রকাশিত দলীয় ইস্তেহার ‘সামনা’তে বঙ্গভবন গড়ে তোলার ব্যাপারটি তুলে ধরেন।

আরও পড়ুনঃ বিজেপি বিরোধিতায় মমতার প্রশংসা, তবে কংগ্রেস ছাড়া বিরোধী জোটে তৃনমূল বিরোধী শিবসেনা মুখপাত্র

শিবসেনার মুখপত্র ‘সামনা’য় প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, আদিত্য ঠাকরের সাথে আলোচনায় বঙ্গভবন তৈরির প্রসঙ্গ উঠে আসে। সেই প্রসঙ্গে আদিত্য ঠাকরে বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি বা ইচ্ছা অযৌক্তিক নয়। কারণ যথারীতি মুম্বাইয়ে ওড়িশা ভবন, উত্তর প্রদেশ ভবন আছে। পশ্চিমবঙ্গ স্বাধীনতা সংগ্রাম ও সামাজিক বিপ্লবে অনেক বড় ভূমিকা পালন করেছেন। তাই দুই রাজ্যের মধ্যে মানবিক সম্পর্ক রক্ষায় এটা করা দরকার।”

আরও পড়ুনঃ ক্রিপ্টোকারেন্সি বিল সম্পর্কে কি বললেন অর্থমন্ত্রী! কি থাকতে পারে বিলের খসড়ায়

এখন দেখা যাক শিবসেনা সরকারের কাছ থেকে কবে জমি পাওয়ার জন্য গ্রীন সিগন্যাল মিলে। আর সেটা মিললে হয়ত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর হাতে মুম্বাইয়ে গড়ে উঠবে বঙ্গভবন, যেখানে বাংলার অনেক মানুষ , যারা জরুরি কর্মসূত্রে যায়, তারা আশ্রয় গ্রহণ করবে। বিশেষ করে যারা যারা টাটা ক্যান্সার হাসপাতালে যায় তাদের বেশি সুবিধা হবে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here