সবং-এ সস্ত্রীক বার্ধক্য ভাতার আবেদন শতবর্ষ অতিক্রান্ত বৃদ্ধের

0
24

নিজস্ব সংবাদদাতা, পশ্চিম মেদিনীপুরঃ

govt office | newsfront.co
আবেদনকারী ৷ নিজস্ব চিত্র

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের পরিকল্পনা দুয়ারে সরকারের আহ্বানে সাড়া দিয়ে ১০১ বছরের এক বৃদ্ধ তার স্ত্রী কে সঙ্গে নিয়ে এসেছিলেন সবং বিডিও অফিসে তার বার্ধক্য ভাতার আবেদনপত্র জমা দিতে। সেই মুহূর্তে বিডিও অফিসে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যসভার সাংসদ ডাক্তার মানস ভুঁইয়া, বিধায়ক গীতা রানী ভূঁইয়া ও সবং ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক তুহিন শুভ্র মহান্তি। ১০১ বছরের বৃদ্ধ রবীন্দ্রনাথ ঘোড়াই ও তার স্ত্রী শ্রীমতি তুলসী রানী ঘোড়াই-র হাত থেকে আবেদনপত্র গ্রহণ করে সঙ্গে সঙ্গে অফিশিয়াল কাজের জন্য যা করার প্রয়োজন তা করে দেওয়ার জন্য বিডিও অফিসের আধিকারিকদের ব্লক উন্নয়ন আধিকারিক নির্দেশ দেন। বহু মানুষ উপস্থিত হয়েছিলেন এই বৃদ্ধ দম্পতি কে দেখার জন্য ।

office | newsfront.co
নিজস্ব চিত্র

তাদের বাড়ি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সবং ব্লকের ১০ নম্বর ভেমুয়া অঞ্চলের দক্ষিণবাড় এলাকায়। ওই বৃদ্ধ ১০১ বছর বয়সেও সতেজ রয়েছে। তাই স্ত্রী কে সঙ্গে নিয়ে বার্ধক্য ভাতার আবেদনপত্র জমা দিতে নিজেই বিডিও অফিসে এসেছিলেন বলে তিনি জানান। রাজ্যসভার সাংসদ মানস ভুঁইয়া ওই বৃদ্ধ দম্পতিকে বলেন, আপনাদের বিডিও অফিস আসতে হবেনা। আপনাদের যা প্রয়োজন বাড়িতে বিডিও অফিস থেকে পৌঁছে দেওয়া হবে। সেই সঙ্গে তিনি ওই বৃদ্ধ দম্পতির পাশে থাকার আশ্বাস দেন।

আরও পড়ুনঃ পদত্যাগের চাপে পুদুচেরিতে ভাঙনের মুখে কংগ্রেস সরকার

তিনি আর ও বলেন তাদের যদি কোনো প্রয়োজন হয় তাহলে যেন তাকে জানানো হয়। তিনি তাদের যাবতীয় ব্যবস্থা করে দেওয়ার আশ্বাস দেন। তবে ওই বৃদ্ধ দম্পতিকে দেখতে রীতিমত বহু মানুষের সমাগম হওয়ায় সবং ব্লকের বিডিও অফিসে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। তবে যাদেরকে দেখার জন্য মানুষের উৎসাহ তারা কিন্তু বিডিও অফিসে দিব্যি খোসমেজাজে ছিলেন । তারা বিডিওর পাশাপাশি সাংসদ ও বিধায়কের সাথে হাসিমুখে কথা বলেন।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here