ব্যাংকের ৪৯ শতাংশ আমানত বিমার আওতায় নেইঃ RBI বার্ষিক রিপোর্ট

0
74

নিজস্ব প্রতিবেদন, নিউজ ফ্রন্টঃ

ব্যাঙ্ক দেউলিয়া হলে আমানতকারীর ভরসা ছিল ডিআইসিজিসি বিমা। কিন্তু বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের বার্ষিক রিপোর্ট অনুযায়ী এই বিমার আওতার বাইরে রয়েছে সারা দেশের মোট ৪৯.১% আমানত।

rbi | newsfront.co
প্রতীকী চিত্র

গত বছরের ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ডিআইসিজিসির আওতায় সর্বোচ্চ আমানতের পরিমাণ ১ লক্ষ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫ লক্ষ টাকা করা হয়। যার অর্থ কোনও ব্যাঙ্ক দেউলিয়া হলে, ওই ব্যাঙ্কের গ্রাহকরা সর্বোচ্চ ৫ লক্ষ টাকা অবধি আমানত ডিআইসিজিসি বিমার আওতায় ফেরত পাবেন।

কিন্তু ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের এই বার্ষিক রিপোর্টে বলা হয়েছে, গত মার্চ মাস পর্যন্ত দেশের ব্যাঙ্কগুলির মোট ২৫২.৬ কোটি ডিপোজিট একাউন্টের মধ্যে ২৪৭.৮ কোটি অ্যাকাউন্ট ডিআইসিজিসি বিমার আওতায় সুরক্ষিত অর্থাৎ অ্যাকাউন্টের সংখ্যার হিসাবে ৯৮.১% ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ডিআইসিজিসি বিমার আওতায় সম্পূর্ণ সুরক্ষিত ঠিকই , কিন্তু আমানতের পরিমাণের অঙ্কে ৪৯.১% আমানতই বিমার আওতার বাইরে!

আরও পড়ুনঃ প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার শূন্য পদ বিলোপের সিদ্ধান্ত নিল ভারতীয় রেল

রিজার্ভ ব্যাঙ্কের রিপোর্ট অনুযায়ী, গত ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের ব্যাঙ্কগুলিতে মোট আমানতের পরিমাণ ছিল ১,৪৯,৬৭,৭৭৬ কোটি টাকা, যার মধ্যে মাত্র ৭৬,২১,২৫৮ কোটি টাকার আমানত (৫০.৯%) ডিআইসিজিসি বিমায় সুরক্ষিত।

আরবিআই এর রিপোর্ট অনুযায়ী ডিআইসিজিসির অধীনে নথিভুক্ত ব্যাঙ্কের সংখ্যা ২,০৫৮টি, তার মধ্যে, ১৩৯টি বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক এবং ১,৯১৯টি কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্ক রয়েছে।দেশের সমস্ত ব্যাঙ্কই এই বিমার সুযোগ নিতে পারে, সেক্ষেত্রে তাদের আলাদা করে ডিআইসিজিসিকে প্রিমিয়াম দিয়ে নথিভুক্তি করাতে হয় এবং তারপরেই বিমার সুবিধা পেতে পারে ব্যাঙ্কগুলি।

আরও পড়ুনঃ সাহায্যের হাত! করোনাকালে ভারতে ১২টন খাদ্য সামগ্রী পাঠাল কেনিয়া

এই সঙ্গে ডিআইসিজিসি ওয়েবসাইটের তথ্য দিয়ে রিজার্ভ ব্যাংক গ্রাহকদের জানিয়েছে তাঁরা চাইলে ওই সাইটে গিয়ে দেখে নিতে পারেন যে তাঁদের ব্যাংক ওই বীমা সুবিধার জন্য নথিভুক্ত কিনা।কোনও ব্যাঙ্ক ডিআইসিজিসিতে নাম নথিভুক্ত না করালে বা প্রিমিয়াম না দিলে ওই ব্যাঙ্কের গ্রাহকরা আমানত বিমার সুবিধা পায় না। অর্থাৎ যদি কোনও ব্যক্তি ব্যাঙ্কে ৫০ লক্ষ টাকা গচ্ছিত রেখে থাকেন এবং ব্যাঙ্ক দেউলিয়া হয় , সেক্ষেত্রে ডিআইসিজিসি বিমার আওতায় ওই গ্রাহক সর্বোচ্চ ৫ লক্ষ টাকা অবধি ফেরত পেতে পারেন। বাকি ৪৫ লক্ষ টাকা বিমার সুরক্ষার আওতায় থাকছে না।

আরও পড়ুনঃ করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশে প্রায় সাড়ে ৫০০ চিকিৎসকের মৃত্যু, দিল্লিতে ১০০-র বেশিঃ আইএমএ

চলতি বছরে দেশের মোট পাঁচটি কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্ক এবং একটি লোকাল এরিয়া ব্যাঙ্ক দেউলিয়া হয়েছে। আরবিআই-এর তথ্য অনুযায়ী, মোট দশটি কো অপারেটিভ ব্যাংকের কলম বাবদ ন’টি কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্কের বিমার ক্লেম বাবদ মোট ৯৯৩ কোটি টাকা গ্রাহকদের ফেরত দিয়েছে ডিআইসিজিসি।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here