কলকাতার মহানাগরিক শোভন দেব চট্টোপাধ্যায় অন্ধকারের মধ্যে মিশে যেতে চাইছেন কেন?

0
320

শ্যামল রায়,কোলকাতা:রাজনীতিতে পোড়খাওয়া মানুষ দূরদর্শী সম্পন্ন একজন ব্যক্তিত্ব ছিলেন কলকাতার মহানাগরিক শোভন চট্টোপাধ্যায়।। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের খুব কাছের মানুষ হিসাবে পরিচিতি এই মানুষটি আজ অন্ধকারের মধ্যে মিশে যেতে চাইছেন বা কেন। জানা গিয়েছে যে তার সহধর্মিনী সাথে বনিবনা না হওয়ার কারণেই তার রাজনৈতিক জীবন থেকে ব্যক্তিগত জীবনেও আঘাতের পর আঘাত আসার কারণেই তিনি নিশ্চুপ হয়ে গেছেন বলে জানা গিয়েছে। শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মাঝে একজন তৃতীয় নারীকে কেন্দ্র করেই ঘটনার সূত্রপাত। তৃতীয় নারী বৈশাখী জানিয়ে দিয়েছেন যে শোভন তার বন্ধুর মতো তিনি চাইলে তার সাথে চিরকাল বন্ধুত্ব পাশে থাকবেন জানিয়ে দিয়েছেন। শোভনের স্ত্রী রত্না দেবী নাছোড়বান্ধা তিনি ওই তৃতীয় নারীকে কোনো মতেই মেনে নিচ্ছে না বলে অভিযোগ এরপর অভিযোগ তুলে মুখ খুলছেন।
নারীকেন্দ্রিক ঘটনার জেরে দিশেহারা শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়। প্রশ্ন উঠেছে যে ব্যক্তিগত জীবন থেকে রাজনীতি ও এর প্রভাব পড়ল কেন?


রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর দলের এই ধরনের নেতাদের নারীঘটিত বিষয়ে কীভাবে সামলাবেন এই প্রশ্ন তুলেছেন রাজ্যের বহু মানুষ। তার দলের আরেক সাংসদ তাপস পাল কে ঘিরে কতনা কাণ্ড ঘটে যাচ্ছে দিনের পর দিন। অভিনেত্রী সাংসদ শতাব্দী রায়কে ঘিরে তাপস পালের অনেক ইতিহাস লুকিয়ে আছে এমনটাও কান পাতলে বেশ শোনা যায় রাজ্যের প্রত্যন্ত গ্রাম শহরে। আর্ত রয়েছে অজস্র বিশিষ্ট মানুষের মধ্যে নারী গঠিত কাণ্ডকারখানা। জানাজানি প্রকাশ্যে এল এই ঘটনার তোলপাড় শোনা যায় কিন্তু আড়ালে-আবডালে থাকলে সেটার কজন খোঁজ রাখে?
এই বিষয়টিকে কেন্দ্র করে এই রাজনৈতিক দলে একের পর এক প্রশ্ন ওঠে।
ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি মার্কসবাদীর সাংসদ ঋতব্রত মুখোপাধ্যায় কে নিয়েও কতনা জলঘোলা হল। একজন নয় একাধিক নারীকে কেন্দ্র করে সিপিআইএম দলে বির্তকের ঝড় উঠেছিল।
তাই গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন কলকাতার মহানাগরিক দীর্ঘদিনের মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। আগামী দিন আদৌ কি অন্ধকারাচ্ছন্ন ময় জীবন চলার পথে পূর্ণিমার চাঁদ দেখা যাবে?

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here