মন্দির রক্ষায় ব্যর্থ, পাকিস্তানে চাকরি খোয়ালেন ১২ পুলিশকর্মী

0
70

নিজস্ব সংবাদদাতা, ওয়েব ডেস্কঃ

গত ৩০ ডিসেম্বর পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনের রাজধানী পেশোয়ারে একটি হিন্দু মন্দিরে ভাঙচুর চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় একটি মুসলিম ধর্মীয় সংগঠনের সমর্থকরা। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারও করে পুলিশ। এরপরেও,
হিন্দু মন্দির রক্ষায় ব্যর্থ হওয়ায় এক উচ্চ পদস্থ পুলিশ আধিকারিক সহ ১২ জন পুলিশ কর্মীকে বরখাস্ত করলো পাকিস্তান।

Hindu Temple Vandalism | newsfront.co
ফাইল চিত্র

আল জাজিরার খবরের সূত্র থেকে জানা গিয়েছে , উচ্ছৃঙ্খল জনতাকে থামানোর চেষ্টা না করা, কাপুরুষোচিত আচরণ, দায়িত্বহীনতা, কর্তব্যে গাফিলতি এবং ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগেই ওই পুলিশ কর্মীদের বরখাস্ত করা হয়েছে।

পাকিস্তানের প্রাদেশিক পুলিশ প্রধান আব্বাসী জানিয়েছেন, উত্তরপশ্চিম খাইবার পাখতুনের আঞ্চলিক সরকার আরো ৩৩ জন আধিকারিককে এক বছরের জন্য শাস্তি স্বরূপ বরখাস্ত করেছে।

আরও পড়ুনঃ ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পের বলি ৩৪, বাড়তে পারে মৃতের সংখ্যা

গত ৩০ ডিসেম্বর উন্মত্ত জনতা খাইবার পাখতুনের রাজধানী দক্ষিণ পেশোয়ার থেকে ৮৫কিলোমিটার দূরের করক জেলায় শ্রী-পরমেশ্বর-জি নামে এক হিন্দু মন্দির ভাঙচুর করেএবং পরে আগুন ধরিয়ে দেয়। ১৯২০ সালে নির্মিত ঐতিহাসিক মন্দিরের হামলার ঘটনায় যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছিল পাকিস্তান সরকার।

হামলার পর ভিডিও ফুটেজ দেখে স্থানীয় মুসলিম সম্প্রদায়ের ধর্মীয় নেতাসহ অন্তত ৩০জন দাঙ্গাকারীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট ওই মন্দির সরকারি ব্যয়ে পুনর্নির্মাণের আদেশ দেন। আগামী ১৯ জানুয়ারি মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে আদালত।

আরও পড়ুনঃ টিআরপি কেলেঙ্কারিতে নতুন মাত্রা! সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস গোপন হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাটের স্ক্রিনশট

উল্লেখ্য,সরকারি তথ্যানুসারে পাকিস্তানে প্রায় ৩৫ লক্ষ হিন্দু বসবাস করেন। অর্থাৎ পাকিস্তানের ২০ কোটি লক্ষ জনসংখ্যার১.৫ শতাংশ হিন্দু।

পাকিস্তানে হিন্দু-মুসলিম দুই ধর্মের মানুষের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান থাকলেও ধর্মীয় অবমাননা ব্লাসফেমি আইন নিয়ে সংখ্যালঘুদের ওপর সংগঠিত সহিংস আক্রমনের ঘটনা সম্প্রতি বৃদ্ধি পেয়েছে।

১৯৪৭ সালে বৃটিশদের থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম পাকিস্তানে থেকে যান এবং সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের অধিকাংশই ভারতে চলে আসেন। গতবছর জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক কমিশন, অন্যান্য ধর্মবিশ্বাসের স্বাধীনতার ক্ষেত্রে খুবই কম সহনশীল হওয়ার কারণে পাকিস্তানকে ‘বিশেষ উদ্বেগজনক’ দেশ হিসেবে উল্লেখ করে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here