COVID-19 সংক্রমণে জলবায়ুর প্রভাব: ভারতীয় রাজ্যগুলির উপর একটি সমীক্ষা

0
55

নিজস্ব সংবাদদাতা, মেদিনীপুরঃ  

কোভিডের দ্বিতীয় তরঙ্গের সময় ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে COVID-19 মহামারীর সংক্রমণের উপর জলবায়ুর প্রভাব নিয়ে গবেষণার ফল প্রকাশ করেছেন ডঃ সব্যসাচী পালের নেতৃত্বে পাঁচজন ভারতীয় গবেষক। বৈজ্ঞানিক ফলাফলগুলি মর্যাদাপূর্ণ আন্তর্জার্তিক গবেষণাপত্র “Environmental Research”  প্রকাশিত হয়েছে। এর আগে, মেদিনীপুর সিটি কলেজের বিজ্ঞানীদের একই দল দেখিয়েছিল যে ভারতে কোভিডের দ্বিতীয় তরঙ্গ (যার জন্য প্রায় 0.45 million লোক মারা গিয়েছিল) মূলত ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের সময় অনিয়ন্ত্রিত প্রচারের মাধ্যমে যা শুরু হয়েছিল।

midnapore college statistics report
নিজস্ব চিত্র 

এর আগে বৈজ্ঞানিকেরা COVID-19 এর প্রাথমিক তথ্য ব্যবহার করে সংক্রামিত ব্যক্তি এবং বিভিন্ন পরিবেশগত কারণ (environmental parameters) গুলির সাথে পারস্পরিক সম্পর্কের সন্ধান করার চেষ্টা করেছেন কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনোও নিশ্চিত ফলাফল পাওয়া যায়নি। COVID-19 এর সংক্রমণ হার  এবং পরিবেশগত কারণগুলির তারতম্য নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও গবেষণা নেই। সংক্রমণ হার হল মহামারীর বিস্তারের ড্রাইভিং প্যারামিটার। ডঃ পালের নেতৃত্বে গবেষকরা সময়-নির্ভর মহামারী সংক্রান্ত মডেল SIRD এবং SEIRD ব্যবহার করে বিভিন্ন পরিবেশগত ফ্যাক্টর এর সাথে COVID-19 ভাইরাসের সংক্রমণ কি করে বাড়ে বা কমে তা প্রমান করেছেন।

আরও পড়ুনঃ বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের একদিনের জাতীয় সেমিনার

COVID-19 এর সংক্রমণ হার বেশিরভাগ ভারতীয় রাজ্যের আপেক্ষিক এবং পরম আর্দ্রতার সাথে একটি নেতিবাচক সম্পর্ক (negative correlation) দেখায়। এর থেকে বোঝা যায় যে ভারতের বেশিরভাগ রাজ্যের জন্য আপেক্ষিক এবং পরম আর্দ্রতা বৃদ্ধির  সাথে COVID-19 সংক্রমণ হ্রাস হয়। আরো দেখা গেছে যে গড় বায়ু তাপমাত্রার সাথে COVID-19 এর সংক্রমণ হারের ইতিবাচক সম্পর্ক (positive correlation) আছে ভারতের বেশিরভাগ রাজ্যের জন্য যার মানে গড় বায়ু তাপমাত্রা বৃদ্ধির সাথে ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পায়।

আরও পড়ুনঃ দুঃস্থ পড়ুয়াদের স্বার্থে গ্রামীণ লাইব্রেরী

পরিবেশগত কারণগুলি ছাড়া বিভিন্ন সামাজিক কারণ যেমন ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি, টিকা, সামাজিক যোগাযোগ ইত্যাদি ভাইরাস এর বিস্তারে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে। এই গবেষণা প্রমান করে যে পরিবেশগত পরিবর্তনশীলতা, বিশেষ করে তাপমাত্রা এবং আর্দ্রতা, মহামারী বিস্তারে ভূমিকা রাখতে পারে, তবে অন্যান্য সামাজিক কারণ যেমন সামাজিক যোগাযোগ, সরকারী হস্তক্ষেপ, লক-ডাউন, জনসংখ্যার ঘনত্ব, ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি, অভিবাসনের ধরণগুলির তুলনায় তাদের প্রভাব কম। শুধুমাত্র তাপমাত্রা এবং আর্দ্রতা রোগ সংক্রমণকে পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না। তাই, সরকারের উচিত স্বাস্থ্যসেবা নীতি ও টিকাদানের ওপর বেশি জোর দেওয়া।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here