চিকিৎসার গাফিলতিতে রোগী মৃত্যুর অভিযোগে বিক্ষোভ মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে

0
19

হরষিত সিংহ,মালদহঃ

বিনা চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ তুলে মালদা মেডিক্যালে বিক্ষোভ দেখালেন রোগীর পরিবার ও স্থানীয়রা। ঘটনায় বুধবার সন্ধ্যায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়াল মালদা মেডিক্যালে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে মেডিক্যালে ছুটে আসে ইংরেজবাজার থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশের আশ্বাসে বিক্ষোভ তুলে নেয় মৃতের পরিবার। ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে ইংরেজবাজার থানায় মেডিক্যাল কতৃপক্ষকে লিখিত অভিযোগ জানালে তদন্তে নামে পুলিশ।
পুলিশ ও মেডিক্যাল সুত্রে জানা গিয়েছে মৃত রোগীর নাম মিহির রায় চৌধুরি(৪৫)। বাড়ী ইংরেজবাজার শহরের মহানন্দা পল্লী এলাকায়।

নিজস্ব চিত্র

পেশায় তিনি রেল গোডাউনের বেসরকারী কর্মী। পরিবার সুত্রে জানা গিয়েছে বুধবার দুপুরে হঠাৎ বুকে ব্যাথা শুরু হয় মিহির বাবুর। পরিবারের লোকেরা তড়িঘড়ি বেলা দুটোর সময় তাঁকে মালদা মেডিক্যালে ভর্তি করায়। ভর্তির পর কর্মরত নার্স তাকে স্যালাইন দিয়ে দেয়। কিন্তু ভর্তির প্রায় দুই ঘন্টা কেটে গেলেও কর্মরত চিকিৎসক ডি সরকার একবারের জন্যেও চিকিৎসা করতে আসেননি পরিবারের লোকেদের অভিযোগ ওই চিকিৎসক মেডিক্যাল ইউনিটে বসেছিলেন। ঘটনায় প্রায় এক প্রকার বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু হয় মিহিরবাবুর। তাঁর মৃত্যুতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে পরিবারের লোকেরা। অভিযুক্ত চিকিৎসকের শাস্তির দাবি দুলে মৃতের পরিবার মেডিক্যালে বিক্ষোভ শুরু করে। মৃতের বাবা বঙ্কিম রায় চৌধুরি অভিযোগ করে বলেন, ভর্তির পর থেকে বহুবার চিকিৎসার জন্য ডাক্টার বাবুকে বলেছিলাম কিন্তু তিনি এক বারের জন্য দেখতে আসেননি। শুধু নার্স স্যালাই দিয়ে কাজ সারে। এদিকে হাসপাতালে ভর্তির পরেও বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু হল আমার ছেলের। দোষী চিকিৎসকের শাস্তি চায় আমি। পরিবারের লোকেরা মেডিক্যালে বিক্ষোভ শুরু করলে ছুটে আসে ইংরেজবাজার থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী।

নিজস্ব চিত্র

বিক্ষোভকারীদের আশ্বাস দিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। অপরদিকে মৃত্যর খবর পেয়ে ছুটে আসেন ওই এলাকার কাউন্সিলার নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি। তিনি অভিযোগ করে বলেন,মেডিক্যাল কলেজে শুধু বিল্ডিং তৈরী হচ্ছে। চিকিৎসার পরিকাঠামো একে বারে নেয় বলে চলে। প্রায় সমস্ত চিকিৎসকেরা হাসপাতাল ছেড়ে প্রাইভেটে প্যাক্টিস করতে ব্যস্ত। এদিকে বিনা চিচিৎসায় মারা যাচ্ছেন সরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীরা। ঘটনার মৃতের বাবা বঙ্কিম রায় চৌধুরি অভিযক্ত চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ইংরেজবাজার থানা ও মেডিক্যাল কতৃপক্ষকে অভিযোগ জানালে তদন্তে নামে পুলিশ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485