জেলার শিল্পীদের শংসাপত্র দেওয়ার সিদ্ধান্ত প্রশাসনের

0
7

শ্যামল রায়,নদীয়াঃ

নদীয়া জেলায় ঐতিহ্যবাহী বিভিন্ন শিল্প কর্মের স্বীকৃতি তে এবার শিল্পীদের শংসাপত্র দেবে প্রশাসন।এমনটাই এক বিশেষ সূত্রে জানা গিয়েছে।

ছবিঃ প্রতীকী

আরো জানা গিয়েছে যে বংশ পরম্পরায় বহু শিল্পী সাফল্যের সঙ্গে এখনো বিভিন্ন ধরনের কাজ করে যাচ্ছেন তাদের উৎসাহিত করার জন্যই প্রশাসনিক স্তর থেকে শংসাপত্র প্রদান করা হবে।

ঘূর্ণির মৃৎশিল্পী থেকে ফুলিয়ার তাঁতিরা, নাকাশিপাড়া বা কালীগঞ্জের কাঁসা-পিতলের সামগ্রী তৈরি করা শিল্পীর সংখ্যাটা কম নয়। শিল্পীদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল তাদের স্বীকৃতি দেওয়া হোক তাই বর্তমান সরকার তাদের ঐতিহ্যবাহী শিল্প কর্মের স্বীকৃতি দিতে চলেছেন।

আরও পড়ুনঃ বিয়ের রেজিস্ট্রি শংসাপত্র হাতে প্রেমিকের বাড়ির সামনে ধর্ণায় যুবতী

জেলাশাসক পবন কাদিয়ানকে এ ব্যাপারে বিভিন্ন সাংবাদিকরা প্রশ্ন করে জানতে পেরেছেন যে উৎকর্ষ বাংলা প্রকল্পের জেলার আরো আধিকারিক জানিয়েছেন যে হস্তশিল্পের শংসাপত্র দেওয়ার ব্যাপারে একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

এছাড়াও শংসাপত্র প্রদান করার আগে ওই সব শিল্পীদের নিয়ে ছোট ছোট ক্লাসের ব্যবস্থা করা হবে।আরো জানা গিয়েছে যে নদীয়া জেলা জুড়ে উৎকর্ষ বাংলায় সাফল্যের সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের শিল্পকর্মের কাজ হচ্ছে সম্প্রতি জেলা প্রশাসনের তরফে রাজ্য কে জানানো হয়েছে চাহিদা অনুযায়ী নতুন নতুন মাস্টাররোল বা কোর্স তৈরি করা হোক।

রানাঘাটের শিল্পকর্মের চাহিদা এক ধরনের এবং কল্যাণী শিল্পকর্মের চাহিদা আর একরকম আবার কৃষ্ণনগরের চাহিদা আলাদা।

তাই বিভিন্ন চাহিদার ভিত্তিতে বিভিন্ন ধরনের কোর্স চালু করা হোক তাতে বেকার যুবক-যুবতীরা অনেকটা উপকৃত হবেন।শংসাপত্র মানেই একটি সম্মানের জায়গা তাই রাজ্য সরকার যে ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে নিশ্চয় প্রশংসার দাবি রাখে এর ফলে শিল্পীরা অনেক খুশি।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485