লক্ষ্মী ভান্ডারের পাল্টা অসম সরকারের ‘অরুণোদয়’ প্রকল্প

0
27

মোহনা বিশ্বাস, ওয়েব ডেস্কঃ

ইটের বদলে পাটকেল মারতে চাইছে বিজেপি। তৃণমূল সরকার তৃতীয়বারের জন্য বাংলার মসনদে বসার পর তাদের প্রথম প্রকল্প ‘লক্ষ্মীর ভান্ডার’। রাজ্যজুড়ে ইতিমধ্যেই এই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়ে গেছে। কিন্তু এতে দমে যাওয়ার পাত্র বিরোধী দল নয়। তাই এবার এই রাজনৈতিক চাপের মোকাবিলা করতে অসম সরকারের ‘অরুণোদয়’ প্রকল্পকে হাতিয়ার করতে চাইছে গেরুয়াশিবির।

BJP

বিজেপির বক্তব্য, বাংলায় যেভাবে প্রকল্প আনা হয়েছে তার তুলনায় অনেক গুণ ভালো প্রকল্প চালায় অসমের বিজেপি সরকার। এবার সেই প্রকল্পে টাকার পরিমাণও বাড়ছে। কার জোর বেশি, এই লড়াইয়ে যদিও বিজেপি চাপে রাখতে পারবে না বলে মনে করছে তৃণমূল। গত ১০ মে অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন বিজেপির হিমন্ত বিশ্বশর্মা। অসমে নতুন সরকারের ১০০ দিন উপলক্ষে শুক্রবার একগুচ্ছ নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে অসম মন্ত্রিসভা।

আর সেখানেই বলা হয়েছে, যে ‘অরুণোদয়’ প্রকল্পে মাসিক ৮৩০ টাকা করে পাওয়া যায়, আগামী ১০ সেপ্টেম্বর থেকে সেই ‘অরুণোদয়’ প্রকল্পেই রাজ্যের দরিদ্র পরিবার পিছু মাসে এক হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। একই সঙ্গে জানানো হয়েছে, আগামী দিনে ধাপে ধাপে ওই অনুদানের পরিমাণ বাড়িয়ে মাসিক তিন হাজার টাকা করা হবে। এই প্রকল্পের কথা প্রচার হোক বাংলাতেও, দাবি বিজেপির। ইতিমধ্যেই দলীয় বৈঠকে এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে বলে বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে। তবে এখনই ঘোষিত কোনও কর্মসূচি নেই দলের।

আরও পড়ুনঃ জাগো বাংলায় লেখার জেরে সাসপেন্ড প্রয়াত সিপিআইএম নেতার মেয়ে অজন্তা বিশ্বাস

এদিকে, রাজ্যের ঘোষণা মতো, বাংলায় ‘লক্ষ্মীর ভান্ডার’ প্রকল্পে গৃহবধূরা মাসে ৫০০ টাকা করে পাবেন। তফসিলি জাতি এবং জনজাতিভুক্ত গৃহবধূদের ১ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। ২৫-৬০ বছর বয়সের মহিলারা আর্থিক সাহায্যের জন্য ‘লক্ষ্মীর ভান্ডার’ প্রকল্পে আবেদন করতে পারবেন। তবে স্থায়ী সরকারি চাকরিরত, পেনশনভোগী, স্বশাসিত সংস্থা, সরকার অধিগৃহীত সংস্থা, পঞ্চায়েত, পুরসভার কর্মী এবং যে সব শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মীরা স্থায়ী বেতন বা পেনশন পান, তাঁদের স্ত্রীরা এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারবেন না।

আরও পড়ুনঃ তালিবানদের সমর্থনে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে অসম পুলিশের হাতে গ্রেফতার ১৪

বাংলায় এই প্রকল্পের ঘোষণা করার পর থেকেই নানা প্রশ্ন তোলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীরা। সাংবাদিক বৈঠক করে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘‘নির্বাচনের আগে তৃণমূলের ইস্তাহারে যা বলা হয়েছিল তার সঙ্গে এই প্রকল্পের কোনও মিলই নেই।’’

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here