গলব্লাডার স্টোন থেকে সাবধান হোন

0
62

নিউজফ্রন্ট ডেস্কঃ

Be careful from gallbladder | newsfront.co
ছবিঃপ্রতিবেদক

মানব শরীরের সব থেকে বড় অঙ্গ হল লিভার। একজন ৮০ কিলোগ্রাম ওজনের মানুষের ক্ষেত্রে লিভারের ওজন হয় ১ কিলোগ্রাম ৭০০ গ্রামের মত। গলব্লাডার হল পিত্তের ভান্ডার। খালি পেটে থাকাকালীন লিভার থেকে পিত্ত বের হয়।

বের হওয়া পিত্ত জমা হয় গলব্লাডারে। খাওয়ার পরে গলব্লাডারে সংকোচনের মাধ্যমে তা চলে যায় পিত্ত ডিয়োডেনামে। ডিওডেনাম হল ক্ষুদ্রান্তের একটি অংশ৷ সাধারণত তিন ধরনের গলস্টোন দেখা যায় – ১) কোলেস্টেরল স্টোন ২) মিক্সডস্টোন ৩) পিগমেন্ট স্টোন।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে কিভাবে বোঝা যাবে যে গলব্লাডারে পাথর জমেছে? এর উত্তরে বলা যায়, প্রাথমিকভাবে পেটের উপরের ডান দিকে ব্যথা অনুভব হতে পারে। এই ধরনের ব্যথা অনুভব হলে চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। আলট্রাসনোগ্রাফি বা ইউএসজির মাধ্যমে চিকিৎসক বলতে পারবেন যে কোথায় সমস্যা। প্রয়োজনে এমআরসিপি পরীক্ষা করাতে হয়।

গলব্লাডারে পাথর হলে সব থেকে বেশি জটিলতা হতে পারে যদি পাথরটি গলব্লাডারের মুখের কাছে আটকে যায় তখন গলব্লাডারে থেকে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে যাকে কলেসিসটাইটিস নামে উল্লেখ করা হয়। তাছাড়া পাথরটি পিত্তনালীতে আটকে গেলে ক্ষুদ্রান্ত্রে যাওয়া বন্ধ হয়ে যায়, তাতে জন্ডিস বা পিত্তনালিতে সংক্রমণ হতে পারে। পিত্তথলির পাথরের থেকে পিত্তথলির ক্যান্সারের আশঙ্কা থেকে যায়।

প্রাথমিকভাবে পেটের উপরের ডান দিকে ব্যথা, বমি বমি ভাব, খাবারে অনীহা অথবা হজমের সমস্যা দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া জরুরি। এখন প্রশ্ন এই ধরনের রোগের চিকিৎসা কি? বেশ কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে চিকিৎসক যখন বুঝবেন গলব্লাডারের স্টোন জমেছে তারপরে ওপেন বা মাইক্রো অস্ত্রপ্রচার করে গলব্লাডারটিকে কেটে বাদ দিতে পারেন।

ইআরসিপি মাধ্যমে বা সার্জারির মাধ্যমে পাথর বার করা হয় পরে গলব্লাডারটিকে থেকে বাদ দেওয়া হয়। কিন্তু যদি গলব্লাডার বাদ দেওয়া হয় তাহলে কি মানব শরীরে কোন সমস্যা হতে পারে? এর উত্তরে বলা যায়, গলব্লাডার বাদ দেওয়া হলে পিত্ত লিভার থেকে সরাসরি ক্ষুদ্রান্ত্রে চলে যায়। গলব্লাডার না থাকলে সে রকম কোনো সমস্যা হয় না।

সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে যদি গলব্লাডারের স্টোন এই বিষয়টি নির্ণয় করে চিকিৎসা জন্য যাওয়া যায় তাহলে ভয়ের কিছু নেই। কিন্তু সেটি দীর্ঘদিন শরীরে জমা হতে থাকলে সেখান থেকে ক্যান্সার এর মতন মরণব্যাধি আসতে পারে। তাই দীর্ঘদিন পেট ব্যাথা হলে ফেলে না রেখে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485