লালগড়ে উন্নয়ন নিয়ে প্রশ্ন তুললেন বিজেপি নেতৃত্ব

0
30

নিজস্ব সংবাদদাতা,ঝাড়গ্রামঃ
লালগড়ের মৃত শবরদের বাড়িতে গিয়ে পরিবারের সদস্যদের সাথে দেখা করে তাঁদের কাছ থেকে সব রকম অভাব অভিযোগ শুনলেন রাজ্য বিজেপি সাধারন সম্পাদক শ্রী সায়ন্তন বসু এবং গুজরাত বিজেপি সম্পাদক শ্রী অমিত ঠাক্কার জি।সায়ন্তন বসু জানালেন ‘উন্নয়নের ছিটে ফোঁটা নেই,প্রধান মন্ত্রী আবাস যোজনার বাড়ী নেই,ঠিক ঠাক অন্যান্য পরিসেবা গুলি নেই মানুষ অনাহারে মারা গেছে,রাজ্য সরকার মানছেন না পরিবারের লোক জানাচ্ছে অনাহারে মারা গেছে।মানুষ ভীত সস্ত্রস্ত,যে সমস্ত বাড়ির লোক মারা গেছেন তৃনমুলে তাদের পরিবারকে সরিয়ে দিয়েছেন তাও কিছু পরিবারের সাথে কথা হয়েছে ও গ্রামের সাধারন মানুষের সাথে কথা হয়েছে।পশ্চিমবঙ্গ কোন জায়গায় দাঁড়িয়ে আছে সেটা এই গ্রামে আসলেই বুঝতে পারছি ।খুব দুঃখ জনক ঘটনা ঘটেছে খুব ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটেছে।যারা গ্রামে ছিলেন তারা সকলে দেখা করেছেন তাদের ক্ষোভের কথা জানিয়েছেন তাদের দুঃখের কথা জানিয়েছেন কিন্তু মৃত পবিবারের অনেক সদস্যকে তৃনমুল এবং পুলিশ মিলে সরিয়ে দিয়েছে যাতে আমাদের সঙ্গে দেখা করতে না পারে।’

জনসাধারণের অভাব অভিযোগ শুনছেন সায়ন্তন বসু। নিজস্ব চিত্র

উল্লেখ্য গত তিন নভেম্বর থেকে এগারো নভেম্বর পর্যন্ত লালগড়ের পূর্নাপানি গ্রামের চারজন শবর পরিবারের মানুষ দীর্ঘ অসুস্থতা এবং তার সাথে মদ্যপানের কারনে মারা যায়।দীর্ঘ অসুস্থতা এবং মদ্যপানের কারেন মৃত্যুর ঘটনা ঘটলেও ঝাড়গ্রাম জেলা প্রশাসনের আধিকারিকেরা ঘটনার খবর জানার পরেই খোঁজ খবর শুরু করেন।তারা পৌছে যান পূর্নাপানি গ্রামে।ঝাড়গ্রামের জেলা শাসক আয়েষা রানী নিজে গ্রামে গিয়ে খবর নেন।বেশ কয়েকজন অসুস্থ মানুষকে হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করেন।একটি পরিবারের বাবা,মা হারানো দুটি নাবালক ছেলে,মেয়েকে হোমে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন।নিয়মিত খাদ্য গ্রহনের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কেও সচেতন করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।এছাড়াও পূর্ণাপানি গ্রামে কুয়ো বাঁধানোর পাশাপাশি সাবমার্সিবল পাম্পটি সারানো হয়েছে। গত এক মাস ধরে এটি খারাপ হয়ে পড়েছিল। পাম্পটি সারানোর পাশাপাশি চারিপাশ বাঁধানো হয়েছে।এদিন করমশোল গ্রামেও একটি সাবমার্সিবল পাম্প সারানো হয়েছে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485