বুথ বাঁচাতে ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা বলয় বিজেপির,বুথ দখলের চেষ্টা অভিযোগ তৃণমূলের

0
91

নিজস্ব সংবাদদাতা,ঝাড়গ্রামঃ

Bjp protect the election booth
নিজস্ব চিত্র

এবার লোকসভা ভোটে ঝাড়গ্রাম জেলায় প্রতিটি বুথকে ঘিরে ‘ত্রিস্তরীয় বলয়’ গড়ছে জেলা বিজেপি।এজন্য ‘বুথরক্ষী বাহিনী’ ও ‘দুর্গা বাহিনী’ গঠন করেছে জেলা বিজেপি।দুর্গা বাহিনীর দায়িত্বে থাকবেন মহিলারা।

জেলা বিজেপির দাবি,মানুষ যাতে সুষ্ঠভাবে ভোট দিতে পারেন সেজন্য এই বাহিনী গঠন করা হয়েছে।অন্যদিকে তৃণমূলের অভিযোগ,ভোটের সময় বিজেপি সন্ত্রাস চালানোর জন্য এসব পরিকল্পনা করেছে।যাতে মানুষ ভয়ে বুথ পর্যন্ত যেতে না পারেন।মানুষ মাওবাদী পর্বে রাত জেগে ভোট দিয়েছেন। এবারও নির্ভয়ে ভোট দেবেন। এসব করে কোনও লাভ হবে না।মানুষ উন্নয়নের উপর আস্থা রাখবেন।

আরও পড়ুনঃ প্রচারে নেমে শাসক দলকে কটাক্ষ করলেন বিজেপি প্রার্থী সিদ্ধার্থ নস্কর

গত পঞ্চায়েত ভোটে বিজেপি ঝাড়গ্রাম জেলায় তুলনামূলকভাবে ভালো ফল করেছে।তারপরই বিজেপি ঝাড়গ্রাম লোকসভা কেন্দ্রটিকে টার্গেট করে পরিকল্পনা শুরু করে। শুধুমাত্র জেলা বিজেপি নয়, রাজ্য নেতৃত্ব ‘পাখির চোখ’ করেছে ঝাড়গ্রাম আসনটিকে। জেলা বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে,বুথকে পাহারা দেওয়ার জন্য ত্রিস্তরীয় বলয় গড়েছে বিজেপি।বুথের মধ্যে একজন বুথ এজেন্ট থাকবেন।ওই বুথকে পাহারা দেওয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী দূরত্ব বজায় রেখে পরপর তিনটি বলয় তৈরি করবে বিজেপি।প্রথমে থাকছে বুথসুরক্ষা বাহিনী।সেই বাহিনীতে ৩০জন থাকবেন। তারপর থেকে একটু দূরে থাকবে দুর্গাবাহিনী।৩০জন মহিলাকে নিয়ে দুর্গাবাহিনী গঠন করা হয়েছে।সবাই হাতজোড় করে থাকবেন। তারপর বিজেপির আরও ৩০জন থাকবেন।সব মিলিয়ে একটি বুথকে ঘিরে মোট ৯০জন পাহারায় থাকবেন।ঝাড়গ্রাম জেলায় মোট ১০৮৫টি বুথ রয়েছে। ঝাড়গ্রাম লোকসভায় ১৯৯৫টি বুথ রয়েছে।এই সমস্ত বুথেই এই ত্রিস্তরীয় বলয় থাকবে বলে বিজেপির দাবি।এরা সবাই বুথকে ঘিরে থাকবে।

ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান সুকুমার হাঁসদা বলেন,মানুষ নিজের ভোট নিজে দেবে।বাহিনী গড়ে কোনও লাভ হবে না।মানুষ শুধুমাত্র উন্নয়ন ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানে।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here