পরীক্ষামূলকভাবে সপ্তাহে তিনদিন করে শুরু হচ্ছে কলকাতা হাইকোর্ট

0
58

শুভম বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতাঃ

দীর্ঘ মাসদুয়েক ধরে বন্ধ কলকাতা হাইকোর্ট সহ সমস্ত আদালত। এই পরিস্থিতি কিছু কর্মী অফিসারদের বেতন নিয়মিত থাকলেও রোজগারহীন হয়েছেন বহু আইনজীবী। তাদের তরফ থেকে সামাজিক দূরত্ব মেনে হাইকোর্ট খোলার আবেদন আসছিল। তাই সমস্ত রকম নিয়ম মেনে আগামী ১১ জুন থেকে পরীক্ষামূলকভাবে বিচার প্রক্রিয়া শুরু হতে চলেছে কলকাতা হাইকোর্টে। শুক্রবার একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এমন সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।

Kolkata Highcourt | newsfront.co
ফাইল চিত্র

হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি থোট্টাথিল ভাস্করণ নায়ার রাধাকৃষ্ণাণের নির্দেশে জারি করা এই বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট করা হয়েছে, আপাতত হাইকোর্টের মূল বিল্ডিংয়ে পরীক্ষামূলক ভাবে কাজ শুরু করা হবে। সোম, বুধ ও শুক্রবার, সপ্তাহে তিনদিন কাজ হবে। এই কাজ শুরুর পর যদি দেখা যায় যদি কোন সমস্যা নেই, তাহলে স্বাভাবিকভাবে এই নিয়মেই চলবে বিচার প্রক্রিয়ার কাজ। তবে যদি কোন রকম অসুবিধা তৈরি হয়, তাহলে আদালতের স্বাভাবিক কাজকর্ম বন্ধ করে দিয়ে পরিস্থিতি অনুযায়ী বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুনঃ করোনায় মৃত ব্যক্তিকে স্বচ্ছ আবরণে এবার দেখতে পাবে পরিবার, নির্দেশ নবান্নের

এদিন বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, হাইকোর্টের মূল ভবনের তিনটি গেট খোলা রেখে চলবে কাজ। বি – গেট দিয়ে আইনজীবী, ল-ক্লার্ক এবং আদালতের কর্মীরা যাতায়াত করবেন, সি – গেট দিয়ে শুধুমাত্র আইনজীবীরা যাতায়াত করতে পারবেন এবং ই–গেট দিয়ে মামলাকারী ও মামলায় যুক্ত অন্যান্য ব্যক্তিরা যাতায়াত করতে পারবে। তবে বিচার প্রক্রিয়া চলাকালীন কোর্ট রুমের মধ্যে থাকতে পারবেন মাত্র ৮ জন। তার বেশি প্রবেশ করতে পারবেন না। এছাড়াও কোর্ট রুমের মধ্যে চারজন করে কর্মী থাকবেন। এবং নিয়ম মেনে মাস্ক ও জীবাণু নাশক আবশ্যক। প্রতিটি গেটে শরীরের তাপমাত্রা মাপার জন্য থাকবে থার্মাল গান। এছাড়াও ১১ তারিখের আগে গোটা আদালত চত্বর জীবাণুমুক্ত করার কথাও জানানো হয়।

আরও পড়ুনঃ করোনা আবহে ৬০-৮০% রাস্তায় যাতায়াত বাড়ল বাইক স্কুটির, বেড়েছে বিক্রি

অন্যদিকে হাইকোর্ট সূত্রের খবর, ১৫ তারিখ থেকে সিটি সিভিল কোর্ট, ব্যাঙ্কশাল কোর্ট, পকসো আদালত, এনডিপিএস আদালত-সহ কয়েকটি নিম্ন আদালত খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে আলিপুর আদালতে এখনও আলোচনা হয়নি।

বাস, ট্যাক্সি, অটো চালু হলেও সবচেয়ে বড় গণপরিবহণ লোকাল ট্রেন পরিষেবা এখনও বন্ধ। অধিকাংশ আদালতকর্মীই বিভিন্ন জেলা থেকে ট্রেনের মাধ্যমে আদালতে পৌঁছন। তবে বৃহস্পতিবারই রাতেই রাজ্যের দক্ষিণবঙ্গ পরিবহণ সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাইকোর্টে আশা কর্মীদের নিয়ে আসা ও নিয়ে যাওয়ার জন্য ১৫ টি বাস বরাদ্দ করা হয়েছে। তারপরেই এ দিন সপ্তাহে তিন দিন করে হাইকোর্ট খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here