মুর্শিদাবাদে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

0
106

রিচা দত্ত,মুর্শিদাবাদঃ

Celebrating International Mother Language Day at Murshidabad
স্কুলে ভাষা দিবস পালন নিজস্ব চিত্র

একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।একুশে মানেই বাংলা ভাষার জন্য উচ্ছ্বাসে ভালোবাসায় চেঁচিয়ে ওঠা,গান গাওয়া।একুশে মানে এক জোয়ারের টানে জড়ো হওয়া পথে-ঘাটে সবখানে।১৯৫২ সালের ফেব্রুয়ারীতে তৎকালীন পূর্ব বাংলায় ঐতিহাসিক ভাষা আন্দোলনের যে বিস্ফোরণ ঘটেছিল বাংলা ভাষার ইতিহাসে তার তাঁৎপর্য অসীম।

Celebrating International Mother Language Day at Murshidabad
নিজস্ব চিত্র

মুসলিম লীগ নেতা আলীগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ১৭ মে ১৯৪৭ এ ঘোষণা করেন উর্দুই হবে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা।এর পরিপ্রেক্ষিতে বিশিষ্ট ভাষাতত্ত্ববিদ ও মুক্ত মানের বুদ্ধিজীবী ডঃ মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ দৈনিক আজাদ পত্রিকায় একটি প্রবন্ধ লিখলেন রাষ্ট্রভাষা বাংলার পক্ষে। সেই হলো প্রথম প্রতিবাদ।তারপর থেকে বিভিন্ন সময়ে ১৯৫২ র ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিভিন্ন আন্দোলন সংগঠিত হয়।বাংলা ভাষার প্রতি ভালোবাসা বুকের রক্ত ঢেলে প্রমাণ করেছিলেন বরকত, রফিক, জব্বার, সালামরা।

আরও পড়ুনঃ মাতৃভাষা কে স্মরণ রেখে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান

Celebrating International Mother Language Day at Murshidabad
সামশেরগঞ্জ নিজস্ব চিত্র

আদায় করে নিয়েছিলেন বাংলা ভাষার স্বীকৃতি।দিনটি ছিল ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি।একুশে ফেব্রুয়ারি আজ আর শুধু একার নয় সমগ্র বিশ্বে আজ এই দিনটি স্মরণ করে।১৮৬ টি দেশ আপন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করে থাকে। ১৯৯৯ সালের ১৭ই নভেম্বর ইউনেস্কো একুশে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিল।

Celebrating International Mother Language Day at Murshidabad
নিজস্ব চিত্র

এছাড়াও আমাদের মুর্শিদাবাদবাসীর কাছে এটি একটি গর্বের বিষয় ভাষা আন্দোলনে যারা রক্ত ঝরিয়ে ছিল তাদের মধ্যে আবুল বারকাত যার ডাক নাম আবাই ১৯২৭ সালের ১৩ ই জুন জন্মগ্রহণ করেছিলেন সালারের বাবলা গ্রামে।উনি সালারে একটি স্কুলে পড়াশোনা করেছিলেন।তবে পরবর্তীতে ১৯৪৮ সালে বহরমপুর কৃষ্ণনাথ কলেজ থেকে আইএ পাস করে ঢাকায় চলে গিয়েছিলেন এবং সেখানে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর করেছিলেন।

Celebrating International Mother Language Day at Murshidabad
শহীদ বরকতের ভিটে নিজস্ব চিত্র

বাংলাকে পাকিস্তানের মাতৃভাষার মর্যাদা দেওয়ার দাবি জানিয়ে ১৪৪ ধারা অগ্রাহ্য করে ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি তিনি মিছিলে যোগদান করেন। বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে গুলিবিদ্ধ হন তিনি।তার দেহ মেলে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হোস্টেলের বারান্দায়।লোকজনের দাবি ছিল গ্রামের নাম হোক বরকত নগর।সে দাবি পূরণ হয়নি।আজ মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে একদিকে যেমন মুর্শিদাবাদের অন্তর্গত সালারের বাবলা গ্রামে বরকতকে স্মরণ করা হচ্ছে।তার বাড়িতে গিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হচ্ছে।

ঠিক সেইরকমই পাশাপাশি বহরমপুরের মনীন্দ্র চন্দ্র বিদ্যাপীঠ (প্রাথমিক বিভাগ) বাচ্চাদের কে আজকের এই ভাষা দিবস সম্পর্কে ওয়াকিবহাল করতে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় এবং তাদের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সম্পর্কে আলোচনা করেন ওই স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা।এছাড়াও মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জে আজ আন্তর্জাতিক ভাষা দিবস উপলক্ষ্যে কাঁকুড়িয়ার প্রতিবন্ধী সমিতি কাঁকুড়িয়া থেকে ধুলিয়ান পৌরসভার নলিনী বাগচীর পাদদেশ পর্যন্ত পদযাত্রা করে। শহীদ বেদীতে মাল্যদান করেন চেয়ারম্যান সুবল সাহা সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিগন।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here