বন‍্যা ত্রাণের ত্রিপল বিলি না করে আত্মসাতের অভিযোগ

0
12

নিজস্ব সংবাদদাতা,দঃদিনাজপুর:-তৃণমূল নেতার বন্ধ দোকানের পাশ থেকে উদ্ধার হল বন্যাত্রাণের ত্রিপল। ঘটনাটি দঃদিনাজপুরের বালুরঘাটের চকভৃগু এলাকার। উদ্ধার হওয়া ত্রিপল পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন স্থানীয়রা। দুর্গতদের দেওয়ার জন্য আনা ত্রিপল লুকিয়ে দোকানে রাখা হয়েছিল বলে অভিযোগ। ঘটনায় অভিযোগের তীর উঠেছে বুথ সভাপতি শৈলেশ মহন্ত, স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান সন্ধ্যা হালদার ও বালুরঘাট ব্লক সভাপতি বিপ্লব খাঁ-র বিরুদ্ধে। যদিও ঘটনার কথা অস্বীকার করেছেন সবাই। ঘটনায় চকভৃগু গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান বালুরঘাট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করতে চলেছেন।
বন্যার সময় অসুস্থ থাকা ওষুধ দোকানের মালিক তরুণ চক্রবর্তীর কাছ থেকে কিছু দিনের জন্য দোকানের চাবি চেয়ে নেন পাশের দোকানের মালিক তথা তৃণমূল নেতা শৈলেশ মহন্ত। অভিযোগ, বন্যার সময় চকভৃগু গ্রাম পঞ্চায়েতে ব্লক ও জেলার পক্ষ থেকে ত্রিপল পাঠানো হয়। অথচ সেই ত্রিপলের মধ্যে কিছু লোককে দিয়ে তা বন্ধ ওষুধের দোকানে মজুত করে রাখা হয়। বিগত কিছু দিন ধরে সেই সব ত্রিপল নিজেদের মধ্যে বিলি করা হচ্ছিল। বিষয়টি নজরে আসতেই এদিন দোকান তালা ভেঙে ভেতরে ঢোকেন স্থানীয়রা।
দোকানের ভেতরে ঢুকতেই চক্ষু চড়ক গাছ সকলের। ঘরের মধ্যে মজুত করা ত্রিপল দেখতে পেয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয় সব। এদিকে বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থান থেকে পালিয়ে যান শৈলেশ মহন্ত বলে জানা গেছে। অন্য দিকে এই ঘটনায় জড়িত রয়েছে অঞ্চল সভাপতি, প্রধান ও তৃণমূলের ব্লক সভাপতি বলে অভিযোগ তুলেছেন চকভৃগু গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান চন্দন দাস।

উদ্ধার হওয়া সেই ত্রিপল

এবিষয়ে চন্দন দাস জানান, বন্যার সময়কার ত্রিপল লোকেদের মধ্যে না দিয়ে চুরি করে তা এই ঘরে মজুত করে রাখা হয়েছিল। কয়েক দিন ধরে দোকানের আশপাশে লোক দেখে তাদের সন্দেহ হয়। এরপর আজ দোকান খুলে ঢুকতে চুরির ত্রিপল নজরে আসে। এই ঘটনায় স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান, অঞ্চল সভাপতি, ব্লক সভাপতি জড়িত রয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন।
এই বিষয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের বালুরঘাট ব্লকের সভাপতি বিপ্লব খাঁ জানান, এই বিষয়ে তাঁর কিছুই জানা নেই। উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে তাঁকে হেনস্থা করার জন্য কেউ কেউ রটিয়ে বেরোচ্ছেন।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485