জম্মু-কাশ্মীরে সেনাবাহিনীর ইফতারের টুইটে সমালোচনা, বিতর্কের জেরে টুইট ডিলিট করলো সেনা

0
55

নিজস্ব প্রতিবেদন, নিউজ ফ্রন্টঃ

সমালোচনার জেরে জম্মু- কাশ্মীরের ডোডা জেলায় ভারতীয় সেনার তরফে আয়জিত ইফতারের ছবি সরলো সেনাবাহিনীর  টুইটার হ্যান্ডল থেকে। বিষয়টি নতুন কিছু নয়, প্রতি বছরই সেনার তরফে জম্মু- কাশ্মীরে ইফতার আয়োজিত হয়। সেনাবাহিনীর ধর্ম নিরপেক্ষ ভূমিকা তুলে ধরতেই এটি করা হয়ে থাকে।

tweet deleted defence pro
এই সেই টুইট যা পরে মুছে দেওয়া হয় সেনার তরফে

এই বছরও সেই রীতি মেনেই  আয়োজিত হয় ইফতার। গত ২১ এপ্রিল সেই ছবি পোস্ট করা হয় সেনা বাহিনীর টুইটার হ্যান্ডলে, ক্যাপশনে লেখা হয়, ‘ধর্মনিরপেক্ষতার ঐতিহ্যকে বাঁচিয়ে রেখে, ডোডা জেলার আর্নোরাতে ভারতীয় সেনাবাহিনী একটি ইফতারের আয়োজন করেছিল’। আর এতেই বেজায় চটে গিয়ে সুদর্শন টিভির প্রধান সম্পাদক  সুরেশ চাভাঙ্কে টুইটে লেখেন, ‘এবার এই রোগ ভারতীয় সেনা বাহিনীতেও প্রবেশ করেছে? দুঃখজনক।‘ এই মন্তব্যের পরেই সেনাবাহিনীর প্রোফাইল থেকে মুছে দেওয়া হয় হয় পোস্টটি।

ওই পোস্টে দেওয়া ছবিতে দেখা যায় যে, ইফতারের জন্য স্থানীয় মানুষজন এসেছেন।  রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের ডেল্টা ফোর্সের এক আধিকারিক স্থানীয় মুসলমানদের সঙ্গে কথা বলছেন ও এক উর্দিধারী সেনা কর্মী নমাজেও অংশ নিয়েছেন। সেই পোস্ট মুছে দেওয়ার কারণ কি সেবিষয়ে এখনো সেনার তরফে কোন প্রতিক্রিয়া দেওয়া হয়নি। সেনা মুছলেও অবসরপ্রাপ্ত আধিকারিক মেজর জেনারেল যশ মোর মূল টুইটটি নিজের টুইটার প্রোফাইলে পোস্ট করেছেন, এবং লিখেছেন, ‘ভারতীয় সেনাবাহিনী ধর্মীয় সম্প্রীতির অগ্রভাগে রয়েছে। আমরা অফিসার হিসাবে গর্ব বোধ করি যে আমাদের কোন ধর্ম নেই, আমরা যে সৈন্যদের নির্দেশ দিই তাদের ধর্ম গ্রহণ করি।‘

 

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here