প্রবীণ বিজেপি নেতা তথাগত রায়ের শনিবাসরীয় টুইটে জমে উঠেছে রাজ্য রাজনীতির সপ্তাহান্ত

0
36

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলকাতাঃ

বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা তথাগত রায় এদিন টুইট করে ‘আপাতত’ বঙ্গ বিজেপিকে বিদায় জানানোর পর থেকেই ঘোর আলোচনা রাজ্য রাজনীতিতে। টুইটার খ্যাত প্রবীন নেতাকে প্রথমেই এক হাত নিলেন বিজেপি-র সর্ব ভারতীয় সহ সম্পাদক দিলীপ ঘোষ। সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, “উনি দলে থাকতেই বা পার্টির কি লাভ হয়েছে আমার তো জানা নেই।“ এরপরে দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, “উনি কি করবেন তা ওঁর সিদ্ধান্ত। ওনাকে নিয়ে ভাবার আমার সময় নেই, আমি দল ও কর্মীদের নিয়ে ব্যস্ত।“

Tathagata Roy

বঙ্গ বিজেপির সভাপতি পদ থেকে দিলীপ ঘোষকে সুকান্ত মজুমদারকে দায়িত্ব দেওয়ায় বেশ উচ্ছাস প্রকাশ করে টুইট করেছিলেন তথাগত রায়। লিখেছিলেন, “রাজ্য বিজেপিতে যে নতুন সভাপতি এসেছেন (সুকান্ত মজুমদার) তিনি আলাদা। ওঁর মানসিক গঠন আলাদা। উচ্চশিক্ষিত মানুষ।“ সঙ্গে ছিল কটাক্ষ, ‘শিক্ষা-দীক্ষার তো একটা দাম আছে, অস্বীকার করার উপায় নেই।’ কিন্তু তথাগতর দল ছাড়ার সম্ভাবনার টুইটে সেই সুকান্ত মজুমদারের কোন তাপ উত্তাপ দেখা গেলো না। বললেন, “উনি সিনিয়র লিডার। কি লিখেছেন তা ওঁর ব্যক্তিগত মত। তবে বর্তমানে উনি কোন বড় কোনও পদে নেই, একজন সাধারণ সদস্য”।

অন্যদিকে, তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষ আবার তথাগতকে কটাক্ষ করে লিখেছেন, “বাংলার রাজনৈতিক বিনোদন জগতে এ এক অপূরণীয় সাময়িক ক্ষতি। তিনি যে দক্ষতায় দর্শককে হাসাতেন, তাঁর অবদান মানুষ মনে রাখবেন। পাগলা দাশুর নাটকে ‘আবার সে এসেছে ফিরিয়া’-র মত সংলাপের অপেক্ষায় থাকব। তবে কামিনী অংশ বাদ দিলেও কাঞ্চন অংশে সিবিআই, ইডির তদন্তের দাবি থাকলই।“

এর পাল্টা জবাব টুইটেই দিয়েছেন তথাগত। টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘সারদা চুরির মামলায় এবং মুখ্যমন্ত্রীর গ্রেপ্তার দাবি করে বহু কাল জেলে। তাই এখন কোথায়, কী ভাবে আছেন, তা নিয়ে একটু কনফিউশন ছিল। জামিনে খালাস আছেন জেনে ভালো লাগল।’

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here