গ্রাহকদের দুর্ব্যবহার, রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাঙ্কের ম্যানেজারকে তলব জেলাশাসকের

0
45

শিবশঙ্কর চ্যাটার্জ্জী, দক্ষিণ দিনাজপুরঃ

ব্যাংক পরিষেবা নিতে এসে দিনের পর দিন হয়রানীর শিকার হওয়ার পাশাপাশি ম্যানেজারের খারাপ ব্যবহার কেন্দ্র করে বালুরঘাটে একটি রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাংকে বিক্ষোভ দেখায় গ্রাহকরা। বিষয়টির মিমাংসা চেয়ে প্রবীন থেকে নবীন ক্ষুব্ধ গ্রাহকরা জেলা শাসকের দ্বারস্থ হলে ব্যাংক ম্যানেজারকে নিজের চেম্বারে ডেকে পাঠান ক্ষুদ্ধ জেলা শাসক।ঘটনায় ব্যাংকের এহেন পরিষেবা ও বাজে ব্যবহারের জন্য জেলা শাসকের দপ্তরের পাশাপাশি ব্যাংকের ভেতর পরিষেবা পেতে আসা অনান্য গ্রাহকদের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়।

misbehave with customers | newsfront.co
ক্ষুব্ধ গ্রাহকরা। নিজস্ব চিত্র

যদিও জেলা শাসকের জরুরি তলব পেয়ে জেলা প্রশাসনিক দপ্তরে এই নিয়ে বৈঠকের পর বালুরঘাট স্টেটব্যাংকের শাখার ম্যানেজার জানান সিস্টেম ডিসওর্ডারের কারনে কিছু হয়রানীর ঘটনার অভিযোগ উঠেছে। জেলা শাসক আমায় ডেকে পাঠিয়ে ছিলেন সেখানে মতামত বিনিময়ে আমাদের ব্যাংকে গ্রাহকের চাপের বিষয়টির কথা জানিয়ে পেনশননারদের দূর দুরান্ত থেকে এই ব্রাঞ্চে গ্রাহক না হয়ে তাদের নিজস্ব এলাকায় ব্যাংকের শাখায় গ্রাহক হওয়ার বিষয়টির ব্যাপারে জানানো হয়েছে। তাহলে তাদের এই হয়রানী শিকার হতে হবেনা বলে তিনি জানান। তবে তিনি খারাপ ব্যবহারের ব্যাপারে কিছু বলতে চান নি।

এদিকে ডেবিট-ক্রেডিট কার্ড, রেমিট্যান্স, মোবাইল ব্যাংকিং, ঋণ ও অগ্রিম, নোটস ও কয়েনস, ব্যাংক গ্যারান্টিসহ বিভিন্ন ধরনের সেবায় হয়রানির অভিযোগ তো ব্যাংকগুলির বিরুদ্ধে আগেই উঠেছে। এবার নতুন পাস বই সময় মত না পাওয়া ও যাদের হাতে নতুন পাস বই এসেছে সেই সব নতুন পাস বইয়ে বার- কোড লাগানোর পরিষেবা না পাওয়ার অভিযোগ নিয়ে গ্রাহক হয়রানীর শিকার বালুরঘাট স্টেট ব্যাংকের প্রধান শাখায় হতে হচ্ছে বলে গ্রাহকদের হয়রানীর অভিযোগ উঠলো।

দূর থেকে আসা এক মহিলা গ্রাহক শম্পা সরকারের অভিযোগ তিনি জানান তার নতুন পাস বই পাওয়ার আশায় তিনমাস ধরে দিনের পর দিন ব্যাংকে এসে ও নতুন পাসবই পাইনি। আজ বৃহষ্পতিবার নতুন পাসবই দেবার দিন সকাল সাতটা থেকে এসে লাইনে দাঁড়িয়ে রয়েছি কিন্তু বেলা এগারটার সময় তাদের বলা হচ্ছে আজও নতুন বই দেওয়া হবেনা। এছাড়াও যাদের হাতে নতুন পাস বই আছে তাদের ও বার-কোড না পাওয়ার দরুন বার বার ঘুড়ে যেতে হচ্ছে। অথচ প্রতিদিন প্রচুর গ্রাহক নিজেদের অন্য কাজ ফেলে রেখে ব্যাংকে আসেন তাদের গ্রাহক পরিষেবা পেতে। আজ তাদের সাথে এই ঘটনা ঘটায় তারা ব্যাংক ম্যানেজারের কাছে অভিযোগ জানাতে গেলে শম্পা সরকারের অভিযোগ ব্যাংক ম্যানেজার তাদের সাথে খারাপ ব্যবহার করেন। বাধ্য হয়ে তারা এর প্রতিবাদ জানাতে ও সুষ্ঠ গ্রাহক সেবা পেতে জেলা শাসকের কাছে এসে অভিযোগ জানাতে বাধ্য হই। জেলা শাসক আমাদের অভিযোগ শুনে তিনি আমাদের আশ্বস্ত করেছেন।পাশাপাশি সংগে সংগে ব্যাংক ম্যানেজারকে তার দপ্তরে ডেকে পাঠিয়েছেন বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুনঃ চাকরি দেওয়ার নামে টাকা তোলার অভিযোগে গ্রেফতার শিক্ষক

অপরদিকে ব্যাংকের কর্মীদের বিরুদ্ধে গ্রাহকদের সাথে এর আগেও দুর্ব্যবহার করবার অভিযোগ উঠেছে বলে স্থানীয় গ্রাহকদের অভিযোগ। কিন্তু কোনবারই এই নিয়ে কর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থ্যা গ্রহন করা হয়না বলে স্থানিও গ্রাহকদের অভিযোগ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here