সারাদিন বইয়ে মুখ গুঁজে না থেকেও যে ভাল ফল করা যায় তা দেখিয়ে দিল সালারের শেফাউল

0
798

কবির হোসেন, মুর্শিদাবাদঃ

টিউশন পড়িয়ে সংসার চালান দাদা, সেই আর্থিক পরিস্থিতিতে উচ্চমাধ্যমিকে ৪৬৪ পেয়ে সালারে সম্ভাব্য প্রথম শেফাউল বাশার ভবিষ্যতে ইংরেজি নিয়ে পড়াশুনা করে শিক্ষক হতে চায়। করোনা কালে স্কুল বন্ধ থাকার ফলে পড়াশোনায় ব্যাপক ক্ষতি হয় গৃহশিক্ষক এবং দাদার  সাহায্যে  সেই ক্ষতি কাটিয়ে উঠে উচ্চ মাধ্যমিকে ৪৬৪ পেয়ে তাই খুবই উচ্ছ্বাসিত শেফাউল । আগামীতে সালার কলেজ থেকে ইংরেজি অনার্স নিয়ে  পড়ে ভবিষ্যতে শিক্ষক হওয়ার ইচ্ছা রয়েছে তার।

নিজস্ব চিত্র

পরিবারের উপার্জনকারী মাত্র একজন, বাবা অবসরপ্রাপ্ত দুই ভাই দুই বোন নিয়ে সংসার । বাড়ি থেকে দূরে  গিয়ে পড়াশোনা করার মতো আর্থিক সামর্থ্য নেই । তাই স্থানীয় কোন  কলেজে ইংরেজী অনার্স এর পড়াশোনা করতে চায় সে। শেফাউল মাধ্যমিকে ভালো রেজাল্ট করে তবে নামী কোন স্কুলে ভর্তি না হয়ে স্থানীয় গ্রামের  স্কুলে ভর্তি হয় আর্থিক সমস্যার কারণে। গ্রামের স্কুল থেকে যে ভালো ফল করা যায় সেটা সে দেখিয়ে দিলো । আগামীতে সে  শিক্ষক হয়ে সমাজ ও দেশের সেবা করতে চায় বিশেষ করে গ্রামের পিছিয়ে পড়া মানুষদের পাশে থাকতে চায়।

আরও পড়ুনঃ উচ্চমাধ্যমিকের ভালো ফল করে দেশের সেবা করতে চান মুর্শিদাবাদের দুই কৃতি ছাত্রী

শেফাউল জানিয়েছে পড়াশোনার ক্ষেত্রে তেমন কোনো রুটিন ফলো করতো না সে।  ইচ্ছে করলে পড়াশোনা করতো আবার ইচ্ছা  না হলে পড়তো না।অবসর সময়ে  সে কবিতা লেখে। নিজস্ব একটা ম্যাগাজিন প্রকাশ করে স্থানীয়ভাবে ।এছাড়া গল্পের বই পড়তে ভালোবাসে ।বাঁধাধরা নিয়মের বাইরে বেরিয়ে ভালো রেজাল্ট করা যায় তার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল শেফাউল বাসার ।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here