অবহেলায় হারিয়ে যাচ্ছে রাজনগরের ঐতিহাসিক স্তম্ভ

0
83

পিয়ালী দাস, বীরভূমঃ

অবহেলায় উড়িষ্যারাজ প্রথম নরসিংহদেবের রাজনগর বিজয়ের স্মারকস্তম্ভ। সময়কাল ১২৪৪ খৃষ্টাব্দ। দিল্লির মসনদে তখন সুলতান গিয়াসউদ্দিন বলবন, আর লক্ষ্মণাবতীর শাসক তুগরল তুগান খান। তুগরলবাহিনী বার বার উড়িষ্যা আক্রমণের চেষ্টা করতো। তাই উড়িষ‍্যারাজ প্রথম নরসিংহদেব ১২৪৪ খৃষ্টাব্দে, ঐতিহাসিক মিনহাজ উদ্দিনের “তবকৎ-ই-নাসিরি” অনুসারে ৬৪২ হিজরি সনের শওয়াল মাসের ১৩ তারিখ মঙ্গলবার লক্ষ্মণাবতী জয়ের জন্য বের হোন এবং পথে বীরভূমের তদানীন্তন রাজধানী রাজনগরের শাসক ফকর-উল-মুলুক করিম উদ্দিন ল‍্যাংঘ্রিকে পরাজিত ও নিহত করে দখল ক‍রে নেন রাজনগর। একদা জেলা বীরভূমের রাজধানী এবং বর্তমানে জেলার প্রান্তিক অঞ্চল রাজনগরের হাটতলায় কালীদহ পুকুরের মাঝখানে এখনো জেগে রয়েছে সেই ঐতিহাসিক স্মৃতি সৌধের ধ্বংসাবশেষ। অনেকেই এটিকে রাজনগরের বীর রাজার তৈরি কালীমন্দির বলে মনে করেন, কিন্তু জলের মাঝখানে সৌধ নির্মাণ হলো একটি উড়িষ‍্যা দেশীয় স্থাপত্য রীতি।

তাই এটি উড়িষ্যারাজ প্রথম নরসিংহদেবের রাজনগর বিজয়ের স্মারকস্তম্ভ। বীর রাজার কালীমন্দির ছিল কালীদহ পুকুরের উত্তর পাড়ে। প্রাকৃতিক কারণে তা নিশ্চিহ্ন। তবে এখনো এলাকার ধীবররা এই কালীদহে মাছ ধরতে নামার আগে উত্তর দিকে মুখ করে মা কালীর উদ্দেশ্যে প্রণাম করে। এছাড়া এই উত্তর দিকেই একটি সিমেন্টের বেদিতে পুজো হয় মা কালীর। এসব কারণে কালীদহের উত্তর দিকেই যে কালীমন্দির ছিল, তা প্রমাণ হয়েই যায়। কালীদহের উত্তর দিকেই জল বর্ষার সময় অতিরিক্ত জল বেরিয়ে যাবার পথ এবং এই পথেই সে জল বেরিয়ে গিয়ে পাশে কুশকর্ণী নদীতে পড়তো। কালীদহের উত্তর দিকের নিচু অংশ এখনো তার সাক্ষী। বর্তমানে এই খাত ধান জমি এবং গ্রীষ্মকালেও একমাত্র এই এলাকার ভেজা মাটিতে ধান চাষ হয়ে থাকে। যাই হোক, কালীদহের মাঝখানে উড়িষ্যারাজ প্রথম নরসিংহদেবের ১২৪৪ খ্রিস্টাব্দে রাজনগর বিজয়ের স্মারকস্তম্ভ এখন অবহেলা আর অনাদরে ধ্বংসের পথে। জেলার এই গুরুত্বপূর্ণ প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন সংরক্ষণ অত্যন্ত জরুরি হলেও এখনো পর্যন্ত নেই কোনো উদ্যোগ, যা একই সঙ্গে উদ্বেগের এবং ভাবনার।

ফিচার ছবি সংগৃহীত।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here