মাজিদ হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন কোচবিহারে

0
55

মনিরুল হক, কোচবিহারঃ

ছাত্রনেতা মাজিদ আনসারির হত্যাকাণ্ডে বাকি অভিযুক্তদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে কোচবিহারে মানববন্ধন করল কলেজ ছাত্রছাত্রীদের একাংশ। আজ কোচবিহার কলেজ থেকে ছাত্রছাত্রীদের এই মানববন্ধন রেলঘুমটি এলাকায় মাজিদের বাড়ি পর্যন্ত যায়।

নিজস্ব চিত্র

এদিন কোচবিহার কলেজের অধ্যক্ষ মাজিদের মৃত্যুতে একটি শোকবার্তা তুলে দেন ছাত্রছাত্রীদের হাতে। সেই শোক বার্তা ছাত্রছাত্রীদের মানব বন্ধনের মধ্যে দিয়ে মাজিদের পরিবারে পৌঁছে যায়।কোচবিহার শহরের সব কলেজ থেকেই ছাত্রছাত্রীরা এই মানববন্ধনে যোগ দেয়। ছাত্রছাত্রীদের অভিযোগ, ছাত্রনেতা হত্যার ঘটনায় অভিযুক্তদের মধ্যে অনেকেই এখনও অধরা।এদিনের এই মানব বন্ধনের মধ্যে দিয়ে মাজিদ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদের পাশাপাশি বাকি অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবি জানায় ছাত্রছাত্রীরা।

নিজস্ব চিত্র

এক মাস আগে আজকের দিনে বাড়ি ফেরার পথে দুষ্কৃতিদের হাতে গুলিবিদ্ধ হন মাজিদ।এরপর শিলিগুড়ির একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে টানা তেরো দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়েও হার মানে মাজিদ। এরপর অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে কোচবিহার শহর জুড়ে প্রতিবাদ আন্দোলন হয়। ১২ ঘণ্টার ধর্মঘট হয় কোচবিহারে।এমত অবস্থায় পুলিশ ছাত্র নেতা খুনের ঘটনায় মদত দেওয়ার অভিযোগে মহম্মদ কলিম (মুন্না)খানকে গ্রেফতার করে। এরপর জামিরুল হক নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ। কিন্তু মাজিদের সহপাঠী ও তৃণমূল ছাত্র পরিষদের একাংশের অভিযোগ, এই হত্যাকাণ্ডে বাকি অভিযুক্তদের এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। আজ ফের অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মানব বন্ধন করে কলেজ ছাত্রছাত্রীরা।

নিজস্ব চিত্র

এদিন এই মানববন্ধন কোচবিহার কলেজ থেকে শহরের রেলঘুমটি এলাকায় মৃত ছাত্রনেতা মাজিদের বাড়ি পর্যন্ত গিয়ে শেষ হয়।
তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কার্যকারী সম্পাদক স্বায়নদ্বীপ গোস্বামী বলেন, “মাজিদের হত্যা কাণ্ডে বাকি অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে আজকে কোচবিহারের সমস্ত কলেজের ছাত্রছাত্রী ও তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কর্মীদের নিয়ে এই মানব বন্ধন কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে।”

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here