শিক্ষার আলো সমানভাবে পৌঁছে দিতেই ফ্রি কোচিং সেন্টারের উদ্বোধন ইসলামপুরে

0
139

শুভদীপ ভট্টাচার্য, মুর্শিদাবাদঃ

ইসলামপুরের টেঁকারায়পুরে ছাত্রছাত্রীদের স্বার্থে ফ্রি কোচিং সেন্টার গড়ে তুললেন এলাকার সাধারণ মানুষ। সার্বিকভাবেই মুর্শিদাবাদ জেলা পিছিয়ে পার্শ্ববর্তী জেলা গুলির চেয়ে। শিক্ষার মানও নৈব নৈব চ প্রকৃতির। প্রয়োজনীয় স্কুল শিক্ষক শিক্ষাকর্মী আজও নেই। ইসলামপুরের টেকরায়পুরেও স্কুলের অধিক‌্য ছাত্রছাত্রীর তুলনার নিতান্ত সীমিত। যতটুকু আছে তাতে প্রয়োজন মেটানোর মত পরিকাঠামো নেই। ছাত্রছাত্রীরা পাইনা পড়বার যথার্থ সুযোগ, পাইনা গাইডলাইন। অন্ধকারে হাঁতড়ে বেড়ানো সার তাদের, কিন্তু ব‌্যাতিক্রম এই আকালেও কিছু মানুষ রয়ে গেছে, এই ‘ধান্দাবাজির যুগেও অন‌্য স্বপ্ন ঢোকে’ তাদের চোখে। তাই বিকল্প ভাবনায়, এলাকার মানুষের সহযোগিতায় ‘প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন পর্ষদ’ এর উদ‌্যোগে টেকারায়পুর অঞ্চলে ফ্রি কোচিং সেন্টার গড়ে তুললেন এলাকার মানুষ। চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্রছাত্রীদের জন‌্য। পরিসর নিতান্তই স্বল্প, কিন্তু সংকল্প অনেক বড়।

নিজস্ব চিত্র

দীর্ঘদিন রাজ‌্য শিক্ষা পরিকাঠামোতে নেই পরীক্ষাপ্রথার মূল‌্যায়নের কাঙ্খিত মান। দ্রুত নিম্নগামী হচ্ছে মেধা, সারা রাজ‌্যেই। শেখবার ও শেখানোতে বাঁধা বিস্তর,বিরাট ধ্বসের মুখোমুখি রাজ‌্য শিক্ষার মান। ‘প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন পরিষদ’ দাবী করে ছাত্রস্বার্থে পাস-ফেল চালুর। বিগত সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেই চ‌্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বিকল্প পরীক্ষা পদ্ধতি গড়ে তুলতে ‘প্রাথমিক শেষ পরীক্ষা’ বা ‘বৃত্তি’ পরীক্ষার মধ‌্য দিয়ে তারা ছাত্রছাত্রীদের দিয়েছেন পরীক্ষার সুযোগ, সেই থেকেই পথ চলা।পাশ বা ফেলে আনন্দ বা দুঃখের স্বাদও ছাত্রছাত্রীদের তারা দিয়েছেন খানিকটা। জীবনের সোপান গুলি পেরোনোর প্রথম ধাপ প্রাইমারির গন্ডি টপকে হাইস্কুলে প্রবেশ। নতুন চেনা, বোঝার নিবিড় এক আনন্দ-বেদনায় গড়া নয়া অনুভুতি। কিন্তু পড়াশোনায় অনীহাতে ছাত্রছাত্রীরা বঞ্চিত হচ্ছে উচ্চশিক্ষাগ্রহণে। তাই বর্ষব‌্যাপি ‘টিউটোরিয়াল’ এর মাধ‌্যমে পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ সৃষ্টিতেই ফ্রি কোচিং সেন্টারের আয়োজন টেকারায়পুরের বাসিন্দাদের। সেই উদ‌্যোগে প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন পর্ষদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে পায়ে পায়ে ভিড় বেড়েছিল হল কক্ষে, অভিভাবকরা হাতে হাত ধরে নিয়ে এসেছিলেন তাঁদের সন্তানদের।

নিজস্ব চিত্র

গভীর প্রত‌্যয়ে ভরা চোখগুলি যেন শেখাচ্ছিল এও এক যুদ্ধজয়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে হলকক্ষে ভীড়ও বাড়তে থাকে। এভাবেই প্রচুর ফ্রি কোচিং সেন্টার গড়ে তুলে সামাজিক শিক্ষার বিস্তারের দৃঢ় প্রত‌্যয় এর অঙ্গীকারে সকলের প্রতিই আহ্বান করেছেন সফিকুল আলম, এলাকার সকলের প্রিয় অনুজ দা। পেয়েছেন সাড়া।উদ‌্যোগ সীমিত, কিন্তু অনুজেরা ছোট নয়,সামাজিক শিক্ষার বিস্তারে এলাকার মানুষ শিক্ষাবিরোধী কার্যক্রমের বিপরীতে হাত রেখেছেন অনুজদের হাতেই।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91 94745 60584

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here