মুর্শিদাবাদে নির্বাচনী প্রচারে এসে অধীরকে কটাক্ষ ফিরহাদের

0
87

রিচা দত্ত,মুর্শিদাবাদঃ

Insinuation of firhad to adhir at election campaign
নিজস্ব চিত্র

গতকাল মুর্শিদাবাদের সালার বাসস্ট্যান্ডের কাছে ভরতপুর-২ ব্লক সভাপতি মহঃ আজারউদ্দিন সিজারের নেতৃত্বে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের উপস্থিতিতে একটি জনসভার আয়োজন করা হয়।এই জনসভার শুরু হওয়ার কথা ছিল সন্ধ্যা আটটা নাগাদ যদিও প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে সেটি কিছুক্ষণ পর শুরু হয়।৯:১৫ নাগাদ ফিরহাদ হাকিম মঞ্চে ওঠেন।প্রথমে এই সভাতে প্রায় তিন হাজার লোক ছিল;পরে রাত্রি বাড়ার সাথে সাথে এবং সেই সঙ্গে আবহাওয়া ঠিক না হওয়ার কারণে সেটি কমে প্রায় হাজারখানেক মানুষ এসে ঠেকে।
মঞ্চ থেকে ফিরহাদ হাকিম প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে বলেন যে, “তিনি মানুষের জন্য কিছু করেননি এই ৫ বছরে।নোট বন্দি জিএসটি ছাড়া সেরম কিছু করেননি এবং নোট বন্দির কারণে প্রায় কুড়ি হাজার যুবক বেকার হয়ে ভিন দেশে কাজ ছেড়ে জেলায় ফিরে আসে এবং তিনি প্রধানমন্ত্রীত্ব নয় বিদেশের এজেন্ট হয়ে দেশকে বিক্রি করতে এসেছেন।হিন্দু-মুসলমানের মধ্যে দাঙ্গা করিয়ে দেশ ভাগ করতে চাইছেন। আর্থিকভাবে দুর্বল করে দিয়ে ভারতবর্ষকে ঋণগ্রস্ত করবার পরিকল্পনা নিয়েছেন এবং বিদেশিদের হাতে বিক্রি করার চিন্তাভাবনা করেছেন” এমনটাই বলেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

Insinuation of firhad to adhir at election campaign
মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। নিজস্ব চিত্র

এরপর তিনি অধীর চৌধুরী কে সরাসরি কটাক্ষ করে বলেন যে, “অধীরের প্রিয় বন্ধু উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথ যোগী।তিনি যোগীর সাথে বসে বন্ধুত্বের খাতিরে নিজের জায়গাটা পরিষ্কার করতে চেয়েছেন। কারণ তিনি ভেবেছেন যদি মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সাথে কংগ্রেসের জোট বাঁধে তাহলে বিজেপি একমাত্র পথ খোলা আছে, যেখানে তিনি যেতে পারবেন।বিজেপি একটি দাঙ্গাকারী দল,তাই তাকে ঘৃণা করি।আর তাদের সঙ্গে অধীর রঞ্জন চৌধুরী সঙ্গ দিয়ে নিজের আদর্শবাদকে শেষ করছেন।প্রথমে আরএসপি এখন কংগ্রেসের এরপর বিজেপিতে যোগদান করবেন।আর তাই দাঙ্গাবাজ ধান্দাবাজ দাগাবাজ এইরকম একজন মানুষকে যে নিজের জীবন ভালোভাবে কাটায় কিন্তু মানুষের জন্য কোন কিছু ভাবে না বা কাজ করে না সেই রকম মানুষকে মনে হয় না বহরমপুরের মানুষ দেখতে চাই তাকে ভোট দিয়ে জেতাতে চাই।
মমতা ব্যানার্জি শিখিয়েছেন মাথা নত করে হাতজোড় করে মানুষের সামনে দাঁড়াও ছাতি দিয়ে নয়।সেবা করতে চাই সুযোগ দিন।এমন মানুষের সামনে বলতে বলেন।মানুষের পাশে থাকা উচিত। মস্তানি করে কখনো রাজনীতি হয় না। নরেন্দ্র মোদীকে রাজনীতি থেকে সরাতে হবে। আর তাকে সরাতে বহরমপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অপূর্ব সরকার কে ভোট দিয়ে জেতাতে হবে।ভোটের আগে এই বিজেপির মানুষগুলি জয় শ্রীরাম বলে চিৎকার করে। হনুমানকে বুক চিরে দেখাতে দেখেছি আমরা যেখানে রাম সীতা বিরাজ করছে।আর এদিকে দিলীপ ঘোষ তরোয়াল নিয়ে বলছে জয় শ্রী রাম,যেন অসুর রুপী রামের আগমন হয়েছে। তারা রাম এর নাম বদনাম করছে।আর কিছুদিন পর সবাই বলবে বিজেপির রাম নাম সত্ হে। এইভাবে বিজেপির শোভাযাত্রা বের হবে।”

আরও পড়ুনঃ নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও সেনার কৃতিত্ব নিয়ে বহরমপুরে নির্বাচনী জনসভায় বক্তৃতা যোগীর

মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম এদিন সভা করতে এসে জানান যে তিনি সালার ঘুরে দেখেছেন এবং এখানে যথেষ্ট উন্নয়নের কাজ হয়েছে তিনি একজন পুর ও নগর উন্নয়নমন্ত্রী হয়ে জানাচ্ছেন যে সালারের মানুষের একটি দাবি আছে যে কান্দি পৌরসভার পাশাপাশি যাতে সালারে পৌরসভা হোক।নির্বাচনের পর সালারে মানুষের এই দাবির পূর্ণ মর্যাদা দেওয়ার চেষ্টা করা হবে বলে তিনি জানান।

নিউজফ্রন্ট এর ফেসবুক পেজে লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন
WhatsApp এ নিউজ পেতে জয়েন করুন আমাদের WhatsApp গ্রুপে
আপনার মতামত বা নিউজ পাঠান এই নম্বরে : +91-9593666485